শীর্ষ মিডিয়া

ব্রেকিং নিউজ

সন্ধ্যা ৭:১১ ঢাকা, শনিবার  ১৫ই ডিসেম্বর ২০১৮ ইং

৭ কারণে ‘বিষাক্ত বন্ধু’কে ত্যাগ করুন

লাইফস্টাইল

বন্ধুত্ব অনেক বড় একটি জগৎ। আর এজগতে থাকতে পারে বন্ধুত্বের দাবিদার কিছু ব্যক্তি, যারা মোটেই বন্ধু নয়।তারা তাদের ‘বিষবাষ্প’ দিয়ে সংক্রমিত করে তোলে আশ পাশের মানুষকে। আপনার বন্ধু মহলে যদি এমন কোনো ব্যক্তি থেকে থাকে, যে একজন বন্ধু রূপী বিষাক্ত মানুষ, তাহলে তাকে ত্যাগ করাই বুদ্ধিমানের কাজ। এ লেখায় থাকছে এমন ব্যক্তিদের সঙ্গ ত্যাগ করার সাতটি কারণ।

. আপনাকে নিয়ে যায় অতি নাটকীয় তার জগতে
পর্দায় নাটক দেখতে পছন্দ করলেও বাস্তব জগতে নাটক সবার পছন্দ নয়। বন্ধু যদি ক্রমাগত অতিরিক্ত নাটকীয়তার মধ্যে আপনাকে নিয়ে যায় তাহলে তা সত্যিই বিরক্তিকর ।নাটক সব বিষয়কে জটিল করে তোলে আর এতে দুর্বিষহ হয়ে উঠতে পারে আপনার জীবন। সত্যিকার বন্ধুরা এবিষয় টি বুঝবেন এবং আপনাকে নাটকীয়তার মধ্যে টানবেন না। আর যে বন্ধু অতিরিক্ত নাটকীয়তার মধ্যে টেনে নেবে,  বুঝে নিন সে সত্যিকার বন্ধু নয়। তাই বন্ধুর নাটকীয়তার কারণে পরিস্থিতি যদি বিরক্তিকর পর্যায়ে চলে যায় তাহলে তাকে ত্যাগ করাই বুদ্ধিমানের কাজ।

. সব সময় নেতি বাচক কথা
আপনার বন্ধুর কথায় ও দৃষ্টিভঙ্গিতে যদি গঠন মূলক কোনো বিষয় না থাকে তাহলে তা সত্যিই চিন্তার বিষয়। এধরনের দৃষ্টি ভঙ্গি ধারীরা অনেকেই সব কথা ও চিন্তায় নেতিবাচকতা প্রকাশ করে। তারা অনেকেই অন্যের চরিত্রের বাজেদিক গুলোই শুধু উন্মোচন করে। ভালো বিষয় তাদের কাছে প্রাধান্য পায় না। নেতিবাচক বন্ধুদের সঙ্ ত্যাগ করা ভালো। অন্যথায় নেতিবাচকতা গ্রাস করতে পারে আপনাকে ও।

. আপনাকে ক্লান্ত করে দেয়
বিষাক্ত বন্ধু আপনাকে তার বিষাক্ত চিন্তাভাবনা ও কাজের দ্বারা ক্লান্ত করে দেবে। বন্ধু হিসেবে স্বভাবতই তার চিন্তা আপনার মধ্যে সংক্রমিত হবে। ফলে বিষাক্ত বন্ধুমানে আপনার বাড়তি ক্লান্তি। আর তাই এমন বন্ধুকে ত্যাগ করাই বুদ্ধিমানের কাজ।

. আপনাকে ব্যবহার করে সুখ অর্জন করে সে
বন্ধুর সুখের জন্য নানা চেষ্টা করতে পারেন, এটা অত্যন্ত স্বাভাবিক। কিন্তু এটা আপনার সব সময়ের কর্তব্য নয়। আপনার নিজের ও সুখ-দুঃখের বিষয় দেখার প্রয়োজন আছে তার। উভয় পক্ষের এসুবিধার আদান-প্রদান সুস্থ সম্পর্ক গড়ে তোলে। কিন্তু বিষয়টি যদি হয়ে আসে একপক্ষীয় তাহলে তা অস্বাভাবিক হয়ে দাঁড়ায়। বন্ধু যদি ক্রমাগত নানা সুবিধা দাবি করে কিংবা নানা পরিস্থিতির কারণে তাকে ক্রমাগত সুখী রাখতে হয়, তাহলে তা সত্যি বিরক্তি কর। যে বন্ধু এমন পরিস্থিতি তৈরি করে তাকে ত্যাগ করাই ভালো।

. ধার কখনোই শোধ করে না
অনেক মানুষ আছে, যাদের ধার শোধ করার অভ্যাস থাকে না। তারা মানুষের কাছ থেকে ধার নেয় এবং চেষ্টা করে তা শোধ না করতে। এমনকি আর্থিক সক্ষমতা থাকলেও তারা ধার শোধ করতে আগ্রহী হয় না। আপনার এমন কোনো  বন্ধু   থাকলে বুঝতে হবে সে সুবিধার মানুষ নয়। আর এ ধরনের বন্ধুকে ত্যাগ করাই বুদ্ধিমানের কাজ।

৬.আপনার সম্পর্কে গুজব ছড়ায়
আপনার বন্ধু বলে দাবি দার কোনো ব্যক্তি যদি আপনার সংবেদন শীল কথা বা গুজব অন্যদের জানিয়ে দেয়, তাহলে তার আন্তরিকতা নিয়ে প্রশ্ন করতেই হয়। এমন মানুষ আপনার প্রকৃত বন্ধু নয় বলেই ধরা যায়। তাই এমন মানুষের সঙ্গ অবিলম্বে ত্যাগ করা উচিত।

৭. আপনাকে নিয়ে মজা করে
কোনো বিষয় নিয়ে যদি অন্য কেউ মজা করে তাহলে তা উত্ত্যক্ত করার পর্যায়ে চলে যায়। এটা সবার সামনে হোক কিংবা আড়ালে, তা গুরুত্বপূর্ণ নয়। প্রকৃত বন্ধু পোশাক বে মানান হলে তা সরাসরি আপনাকে জানিয়ে দেবে। কিন্ এধরনের দুর্বলতা নিয়ে যারা ক্রমাগত মজা করবে, তারা আপনার বন্ধু নয়। তাই এমন ব্যক্তিদের সঙ্গ ত্যাগ করাই বুদ্ধিমানের পরিচয়।  সূত্র:ইন্টারনেট