ব্রেকিং নিউজ

সন্ধ্যা ৭:০২ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ১৯শে জুলাই ২০১৮ ইং

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত একনেক সভা

৬২২৮ কোটি টাকার ১৪ প্রকল্প একনেকে অনুমোদন

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) ‘বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা উন্নয়ন প্রকল্প, কুমিল্লা জোন’সহ ৬ হাজার ২২৮ কোটি ৪৯ লাখ টাকা ব্যয়ে মোট ১৪টি উন্নয়ন প্রকল্পের চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে। এসব প্রকল্পে বাংলাদেশ সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে ব্যয় হবে ৫ হাজার ৪২১ কোটি ৪০ লাখ টাকা, সংস্থার নিজস্ব অর্থায়ন ৬৫ কোটি ৮১ লাখ এবং প্রকল্প সাহায্য পাওয়া যাবে ৭৪১ কোটি ২৮ লাখ টাকা।

মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলানগর এনইসি সম্মেলনকক্ষে একনেকের চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় এসব প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়।

সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল প্রকল্প সম্পর্কে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

তিনি বলেন, কুমিল্লা বিতরণ জোনের আওতায় ৬ জেলার ১৩ উপজেলায় বিদ্যুৎ বিতরণের সক্ষমতা বাড়াতে নতুন বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা উন্নয়ন, কুমিল্লা জোন প্রকল্পটি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এটি বাস্তবায়ন হলে ২০৩০ সাল পর্যন্ত চাহিদা অনুযায়ী ১৩ উপজেলায় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ বিতরণ করতে প্রয়োজনীয় সহায়ক অবকাঠামো উন্নয়নের মাধ্যমে আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন হবে।

তিনি জানান, প্রকল্পটি বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে এক হাজার ৪৫৫ কোটি ৯৫ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে ব্যয় হবে এক হাজার ৪৫৫ কোটি ৯৫ লাখ টাকা এবং সংস্থার নিজস্ব অর্থায়ন থাকবে ৬৫ কোটি ৮১ লাখ টাকা।

চলতি মাস থেকে ২০২১ সাল মেয়াদে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হবে। যে ১৩ টি উপজেলায় প্রকল্প বাস্তবায়ন হবে এগুলো হলো-কুমিল্লা সদর উপজেলা, চৌদ্দগ্রাম, লাকসাম ও বুড়িচং উপজেলা; ব্রাক্ষণবাড়িয়া জেলার সদর উপজেলা, আশুগঞ্জ ও সরাইল উপজেলা; চাঁদপুর জেলার চাঁদপুর সদর উপজেলা; নোয়াখালী জেলার মাইজদি উপজেলা, বেগমগঞ্জ ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা; ফেণী জেলার ফেণী সদর উপজেলা এবং লক্ষীপুর জেলার লক্ষীপুর সদর উপজেলা।

একনেকে অনুমোদন পাওয়া অন্য প্রকল্পসমূহ হলো-পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের ‘পাবনা জেলার সুজানগর উপজেলার গাজনার বিলের সংযোগ নদী খনন, সেচ সুবিধার উন্নয়ন এবং মৎস্য চাষ (৩য় সংশোধিত) (প্রস্তাবিত)’ প্রকল্প, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের কক্সবাজার জেলার বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্ত নিরাপত্তা উন্নত করার জন্য উখিয়া ও টেকনাফ উপজেলায় নাফ নদী বরাবর পোল্ডারগুলোর (৬৭/এ, ৬৭, ৬৭বি এবং ৬৮) পুনর্বাসন’ প্রকল্প।

কৃষি মন্ত্রণালয়ের ‘বাংলাদেশে মসলা জাতীয় ফসলের গবেষণা জোরদারকরণ’ প্রকল্প, স্থানীয় সরকার বিভাগের ‘বৃহত্তর নোয়াখালী জেলার পল্লী অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প-৩য় পর্যায়’ প্রকল্প, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের ‘মরজাল- বেলাব সড়ক ও পোড়াদিয়া-বেলাব জেলা মহাসড়ক দু’টি যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ’ প্রকল্প।

এছাড়া সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের ‘বগুড়া শহর থেকে মেডিকেল কলেজ পর্যন্ত সংযোগ সড়ক নির্মাণ প্রকল্প, নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের ‘জিএমডিএসএস এবং ইন্টিগ্রেটেড মেরিটাইম নেভিগেশন সিস্টেম স্থাপন’ প্রকল্প, নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের ‘গোবরাকুড়া-কড়ইতলী স্থলবন্দর উন্নয়ন’ প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

সুরক্ষা সেবা বিভাগের ‘ইন্ট্রোডাকশন অব মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট (এমআরপি) এবং মেশিন রিডেবল ভিসা (এমআরভি) ইন বাংলাদেশ’ প্রকল্প, অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের ‘মূল্য সংযোজন কর ও সম্পূরক শুল্ক আইন, ২০১২ বাস্তবায়ন (ভ্যাট অনলাইন)’ প্রকল্প, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের ‘লার্নিং অ্যান্ড আর্নিং ডেভেলপমেন্ট’ প্রকল্প, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের ‘বিসিএস ক্যাডার কর্মকর্তাদের সক্ষমতা বৃদ্ধির মাধ্যমে সরকারকে শক্তিশালীকরণ (২য় পর্যায়)’ প্রকল্প, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের ‘কেমিক্যাল মেট্রোলজি অবকাঠামো সমৃদ্ধকরণ’ প্রকল্প অনুমোদন পেয়েছে একনেক সভায়।