ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৭:৫২ ঢাকা, সোমবার  ২২শে অক্টোবর ২০১৮ ইং

৬১টি জেলা পরিষদের নির্বাচন ২৮ ডিসেম্বর
জেলা পরিষদ নির্বাচন

৬১টি জেলা পরিষদের নির্বাচন ২৮ ডিসেম্বর

আগামী ২৮ ডিসেম্বর তিন পার্বত্য জেলা বাদে দেশের ৬১টি জেলা পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ভোটগ্রহণের এই দিনক্ষণ চূড়ান্ত করে‌ তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

রোববার দুপুরে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে জেলা পরিষদ নির্বাচনের এই তফসিল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী রকীব উদ্দীন আহমেদ।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী মনোনয়ন জমা দেয়ার শেষ তারিখ ১ ডিসেম্বর, যাছাই-বাছাই ৩ ও ৪ ডিসেম্বর এবং প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ১১ ডিসেম্বর। আর ভোট গ্রহণ করা হবে ২৮ ডিসেম্বর।

সংশোধিত জেলা পরিষদ আইন অনুযায়ী, জেলা পরিষদ হবে ২১ সদস্যের। যার মধ্যে একজন চেয়ারম্যান, ১৫ জন সদস্য ও ৫ জন সংরক্ষিত মহিলা সদস্য থাকবেন।

তারা নির্বাচিত হবেন সিটি করপোরেশনের মেয়র ও কাউন্সিলর, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান, পৌরসভার মেয়র ও কাউন্সিলর, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদস্যদের ভোটে।

জেলা পরিষদের নির্বাহী ক্ষমতা থাকবে চেয়ারম্যানের কাছে। তবে তার অনুপস্থিতিতে কাউন্সিলরদের মধ্যে থেকে একজন বা সরকারি কর্মকর্তারাও চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করতে পারবেন। সরকার গেজেট করে সরকারি কোনো কর্মকর্তাকেও এ দায়িত্ব দিতে পারবে।

অনলাইনে মনোনয়ন দাখিল :
নির্বাচনী বিধিতে নির্দলীয়ভাবে অনুষ্ঠিতব্য জেলা পরিষদের নির্বাচনে মনোনয়নপত্র সরাসরি বা অনলাইনে দাখিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। অনলাইনে যে কোনো প্রার্থী নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের ওয়েবসাইটে মনোনয়নপত্র দাখিল করতে পারবেন। এক্ষেত্রে প্রার্থী প্রথমে ইসি সচিবালয়ের ওয়েবসাইটে নির্ধারিত লিংকে প্রবেশ করে জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর, জন্ম তারিখ, বিভাগ, জেলা ও উপজেলার নাম এন্ট্রি করে নিবন্ধন করবেন। নিবন্ধন সম্পন্ন হওয়ার পর প্রার্থী সাথে সাথেই একটি ইউজার নেইম ও পাসওয়ার্ড পাবেন। প্রাপ্ত ইউজার নেইম ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করার পর সংশ্লিষ্ট যে কোনো পদের মনোনয়ন ফরম পাওয়া যাবে। প্রার্থী অনলাইনে সংশ্লিষ্ট মনোনয়নপত্রটি পূরণ করবেন। মনোনয়নপত্র পূরণ সম্পন্ন হওয়ার পর পূরণকৃত তথ্যাদি সঠিক আছে কি না তা যাচাই করার পর পূরণকৃত মনোনয়ন ফরমটি প্রিন্ট করে সংশ্লিষ্ট স্থানে প্রস্তাবকারী, সমর্থনকারী ও প্রার্থী স্বাক্ষর প্রদান করবেন। স্বাক্ষরিত মনোনয়ন ফরম, জামানতের প্রমাণস্বরূপ ট্রেজারি চালান এবং হলফনামা সম্পর্কিত প্রত্যয়নপত্রসহ সংশ্লিষ্ট কাগজপত্রাদির যথাযথ স্থানে স্বাক্ষর করার পর তা স্ক্যান করে পিডিএফ আকারে দাখিল করতে হবে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে অনলাইনে মনোনয়নপত্র দাখিলের পর প্রার্থীর প্রদত্ত মোবাইল ফোনে স্বয়ংক্রিয়ভাবে এসএমএস-এর মাধ্যমে দাখিলের বিষয় নিশ্চিত করা হবে। রিটার্নিং অফিসার অনলাইনে প্রাপ্ত প্রত্যেকটি মনোনয়ন লিপিবদ্ধ করে ক্রমিক নম্বর প্রদান করবেন। অনলাইনে দাখিলকৃত মনোনয়নপত্রসহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য কাগজপত্রাদির মূল কপি মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের নির্ধারিত দিন সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং অফিসারের কাছে দাখিল করবেন। অনলাইনে একজন প্রার্থী একাধিক মনোনয়নপত্র দাখিল করতে পারবেন। এক্ষেত্রে কোনো ব্যক্তি একাধিক মনোনয়ন দাখিল করলে রিটার্নিং অফিসার কর্তৃক প্রাপ্ত প্রথম বৈধ মনোনয়নপত্র ব্যতীত অন্য সকল মনোনয়ন বাতিল হয়ে যাবে।

উল্লেখ্য, তিন পার্বত্য জেলা বাদে দেশের ৬১টি জেলা পরিষদে ২০১১ সালের ১৫ ডিসেম্বর দলীয় নেতাদের প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ দেয় সরকার।