ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ১:১৪ ঢাকা, সোমবার  ২৪শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

বিভক্ত ফ্রান্স: ৫০ লাখ মুসলিমকে বহিস্কারের পরামর্শদাতার চাকুরীচ্যুতি

ফ্রান্সকে সম্ভাব্য গৃহযুদ্ধ থেকে বাঁচাতে মুসলিম জনগোষ্ঠীকে বহিষ্কারের পরামর্শ দেয়ার পর একজন সুপরিচিত টিভি অ্যাংকরকে চাকুরিচ্যুত করা হয়েছে। কিন্তু আই টেলে নামের সংবাদ ভিত্তিক এই টিভি চ্যানেলের পদক্ষেপের পক্ষে-বিপক্ষে ফ্রান্স জুড়ে শুরু হয়েছে তীব্র বিতর্ক।

ব্রিটেনের দৈনিক দি ইন্ডিপেন্ডেন্টে প্রকাশিত খবর মতে, এরিক জেমোর নামে এই ইহুদি এই সাংবাদিক সম্প্রতি ইটালির এক সংবাদপত্রের সাথে এক সাক্ষাৎকারে মন্তব্য করেন, ফ্রান্সকে বিশৃঙ্খলা এবং সম্ভাব্য গৃহযুদ্ধ থেকে রক্ষা করতে সেদেশের ৫০ লাখ মুসলিমকে বহিস্কার করা ছাড়া উপায় নেই। তিনি বলেন, এই পদক্ষেপ খুব কঠিন কিন্তু প্রয়োজনীয়।

ইটালিয় ভাষায় প্রকাশিত তার এই সাক্ষাৎকারটি বেশি কিছুদিন কারো চোখে পড়েনি। কিন্তু ফ্রান্সের বামপন্থি একটি রাজনীতিক তার ব্লগে মি জেমোরের এই সাক্ষাৎকারটি ফরাসী ভাষায় অনুবাদ করে প্রকাশ করলে বিতর্কের ঝড় শুরু হয়। বিতর্কের মাঝে আই টেলে মি জেমোরকে চাকুরীচ্যুত করেছে। কিন্তু তার এই চাকুরীচ্যুতি নিয়ে এখন শুরু হয়েছে বিতর্ক। বর্ণবাদ বিরোধী রাজনীতিক সংগঠনগুলো আই টেলে টিভির এই পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছে।

অন্যদিকে দক্ষিণপন্থি রাজনীতিকদের অনেকেই তার চাকুরিচ্যূতির কড়া সমালোচনা করছেন। এমনকি বামপন্থিদের অনেকেও বলছেন, এই চাকুরীচ্যুতি মত প্রকাশের স্বাধীনতার জন্য ক্ষতিকর।

সমালোচনায় জড়িয়ে পড়ার মি জেমোর এখন বলার চেষ্টা করছেন তিনি ডিপোর্টেশন বা বহিষ্কার শব্দটি উচ্চারণ করেননি। এটা ইটালির ঐ পত্রিকার নিজস্ব ব্যাখ্যা।

নিজে আলজিরিয়া থেকে আসা অভিবাসী ইহুদি পরিবারের হলেও, মুসলিম, অভিবাসী এবং সমকামীদের ব্যাপারে তার কট্টর মনোভাব সর্বজনবিদিত।

সম্প্রতি তার প্রকাশিত একটি বইতে মি জেমোর লিখেছেন, অভিবাসন ফরাসী সমাজের মৌলিক চরিত্র এবং মূল্যবোধ নষ্ট করে দিচ্ছে।