ব্রেকিং নিউজ

ভোর ৫:০৩ ঢাকা, বুধবার  ২৫শে এপ্রিল ২০১৮ ইং

নুরুল ইসলাম নাহিদ
শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ

“৩৪ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট করার পরিকল্পনা”

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তুলতে সরকার আরও ৩৪টি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে।

দেশে বর্তমানে ৪৯টি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট রয়েছে বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘শিক্ষাকে আমরা অগ্রাধিকার দিচ্ছি। কিন্তু কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষাকে আমরা আরও বেশি অগ্রাধিকার দিচ্ছি।’

আজ মঙ্গলবার রাজধানীর আশকোনায় ব্র্যাক ইনস্টিটিউট অব স্কিলস ডেভেলপমেন্ট (ব্র্যাক-আইএসডি)-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী এসব কথা বলেন।

গতানুগতিক ‘সিলেবাস’ এর পরিবর্তে আধুনিক ধারার শিক্ষার ওপর গুরুত্বারোপ করে তিনি বলেন, ‘নতুন প্রযুক্তির সঙ্গে তরুণদের সম্পৃক্ত করতে না পারলে চাকরির ক্ষেত্রে আমরা কোনভাবেই ভালো করতে পারব না’।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে ন্যাশনাল স্কিলস ডেভেলপমেন্ট কাউন্সিল সেক্রেটারিয়েটের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এবিএম খোরশেদ আলম, উপআনুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো-’র প্রকল্প পরিচালক ড. আলফাজ হোসেন, ইউনেস্কো ঢাকা অফিসের প্রধান বেকট্রিক কালদুন, ব্র্যাকের নির্বাহী পরিচালক ডা. মুহাম্মাদ মুসা ও ব্র্যাকের দক্ষতা উন্নয়ন কর্মসূচির প্রধান আহমেদ তানভির আনাম।

বক্তারা টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে শ্রমিকদের দক্ষতা বৃদ্ধির উপর গূরুত্বারোপ করে বলেন, দেশে মোট শ্রমশক্তির ৮৭ শতাংশই কৃষি, ক্ষুদ্রব্যবসাসহ নানা অনানুষ্ঠানিক পেশায় নিয়োজিত। কিন্তু উপযুক্ত প্রশিক্ষণ ও দক্ষতা না থাকায় তাদের অনেকে প্রত্যাশিত ভূমিকা রাখতে পারছেন না, যা টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনের অন্যতম চ্যালেঞ্জ।

অনুষ্ঠানে এ সংক্রান্ত উপস্থাপনা তুলে ধরেন সংস্থাটির স্ট্র্যাটেজি, কমিউনিকেশন্স অ্যান্ড এমপাওয়ারমেন্ট কর্মসূচির ঊর্ধ্বতন পরিচালক আসিফ সালেহ্।

উপস্থাপনায় বলা হয়, দেশে প্রতিবছর ২০ লাখের অধিক মানুষ শ্রম বাজারে আসছে। ২০২৫ সালের মধ্যে বাংলাদেশে কর্মক্ষম মানুষের সংখ্যা ৭ কোটি ৬০ লাখে উন্নীত হবে। শ্রমবাজারে আসা ৬০ শতাংশের বয়স ৩০ বছরের নিচে। এত বিপুলসংখ্যক তরুণ শ্রমবাজারে এলেও তাদের ৪০ শতাংশই দক্ষতাহীন।

এতে ইলেকট্রিক্যাল ইন্সটলেশন অ্যান্ড মেইনটেন্যান্স, রেফ্রিজারেশন অ্যান্ড এয়ারকন্ডিশনিং, সুইং মেশিন অপারেশন, হাউজ কিপিং অকোপেশন, হসপিটালিটি এন্ড ট্যুরিজম সার্ভিসেস, গ্রাফিক ডিজাইন অ্যান্ড আউট সোর্সিং, রিটেইল সেইলস (পণ্যবিক্রয় সংক্রান্ত) ও সফট স্কিল (সচেতনতামূলক) এই ৮টি বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। বিষয় অনুযায়ী সর্বনি¤œ ৩ দিন থেকে ৩ মাস পর্যন্ত প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। কোর্স ফি ১৫০০ টাকা থেকে সাড়ে ৭ হাজার টাকা পর্যন্ত। তবে প্রতিবন্ধী ও দরিদ্র নারীদের জন্য বিশেষ ছাড়ের ব্যবস্থা আছে। এর পাশাপাশি প্রশিক্ষণার্থী ও উদ্যোক্তাদের জন্য ঋণের ব্যবস্থা আছে।

ব্র্যাকের উদ্যোগে এই ইনস্টিটিউট ছাড়া টঙ্গি, মানিকগঞ্জ, গাজীপুর, পাবনা, নীলফামারি, রংপুর, মাগুরা, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, সাভার, আশুলিয়া, নারায়ণগঞ্জ ও কুমিল্লায় এ ধরনের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।