ব্রেকিং নিউজ

রাত ২:১৭ ঢাকা, মঙ্গলবার  ২৩শে অক্টোবর ২০১৮ ইং

২৫৫০ জনের জরিপ: সরকারের জনপ্রিয়তা বাড়ছে

আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারের প্রতি মানুষের আস্থা ও সমর্থন বাড়ছে। যদিও নির্বাচন নিয়ে জনগণের মধ্যে বিভক্তি আছে। সেই সঙ্গে নাগরিকরা মনে করেন দেশের অর্থনীতি সঠিক পথেই এগোচ্ছে। দেশের অর্থনীতির ভবিষ্যৎ নিয়েও জনগণ ইতিবাচক মনোভাব পোষণ করেন। তবে দুর্নীতি নিয়ে উদ্বিগ্ন নাগরিকরা। গুরুত্বপূর্ণ এ সমস্যাটির সমাধানে সরকারের উদ্যোগ কম বলেও মনে করেন তারা।
যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ইন্টারন্যাশনাল রিপাবলিকান ইন্সটিটিউট (আইআরআই) নামের একটি সংস্থার বাংলাদেশ নিয়ে সাম্প্রতিক এক মতামত জরিপে এসব তথ্য উঠে এসেছে। বুধবার এ জরিপের ফল প্রকাশ করা হয়। আইআরআই এ বছরের ২৩ মে থেকে ১০ জুন পর্যন্ত দেশের ৬৪ জেলার ২ হাজার ৫৫০ জনের ওপর এ জরিপ চালায়। জরিপে অংশ নেয়া সবাই প্রাপ্তবয়স্ক তথা ভোটার। রেন্ডম বাইয়ের মাধ্যমে সরাসরি তাদের সাক্ষাৎকার নেয়া হয়। ২০০৮ সাল থেকে আইআরআই বাংলাদেশে এ ধরনের জরিপ পরিচালনা করে আসছে।
জরিপে দেখা গেছে, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের প্রতি সংখ্যাগরিষ্ঠ উত্তরদাতাদের বেশ ভালো সমর্থন আছে। তবে সরকারের চেয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি জনসমর্থন বেশি। জরিপে দেখা যাচ্ছে, সরকার ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি সমর্থন বেড়েছে। সরকারের প্রতি ৬৬ আর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি সমর্থন বেড়ে ৬৭ শতাংশে পৌঁছেছে।
আগামী জাতীয় নির্বাচনের ব্যাপারে জিজ্ঞেস করা হলে উত্তরদাতারা দুভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েন। ৪৩ শতাংশ মনে করেন অতিসত্বর জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়া দরকার। ৪০ শতাংশ অংশগ্রহণকারী মনে করেন, এ সরকার মেয়াদ পূর্ণ হওয়ার পরই নতুন সংসদ নির্বাচন দিক। এর আগে ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরে একই সংস্থার জরিপে দেখা গেছে, ৪০ শতাংশ মানুষ চান অনতিবিলম্বে জাতীয় সংসদ নির্বাচন হোক। অপরদিকে ৪৫ শতাংশ চান বর্তমান সরকার তার মেয়াদ পূর্ণ করুক।
জরিপে দেখা গেছে, দেশের ভবিষ্যৎ নিয়ে বাংলাদেশের নাগরিকরা আশাবাদী। কিন্তু তাদের উদ্বেগের বিষয় হল দুর্নীতি। গুরুত্বপূর্ণ এ সমস্যাটির সমাধানে সরকারের উদ্যোগ কম বলেও মনে করে জনগণ। দুর্নীতি রোধে সরকার সম্পৃক্ত, তবে দুর্নীতি রোধ সরকার করতে পারবে কিনা তা নিয়ে যথেষ্ট সংশয়ে আছেন ৪৭ শতাংশ উত্তরদাতা। দুর্নীতির প্রশ্নে ১১ শতাংশ মানুষ বলেছেন, তারা ঘুষ দিয়েছেন। তাদের অর্ধেকেরও বেশি বলেছেন তারা অন্তত ৫ হাজার টাকা ঘুষ দিয়েছেন।
জরিপে মতামত প্রদানকারী ৬২ শতাংশ মানুষ মনে করেন দেশ সঠিক পথেই এগোচ্ছে। এর আগের জরিপে এ ব্যাপারে মত ছিল ৫৬ শতাংশের। এবারের জরিপে তা ৬ শতাংশ বেড়েছে। আর ৭২ শতাংশ মানুষ মনে করেন দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা ইতিবাচক। জরিপে অংশগ্রহণকারী ৬৮ শতাংশ মানুষ মনে করেন দেশের সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থাও ভালো। বাংলাদেশের রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা ইতিবাচক বলে মনে করেন জরিপে অংশ নেয়া ৬৪ শতাংশ মানুষ।
নির্বাচনী সহিংসতা ও হরতাল কমে আসার ব্যাপারটিও জরিপে উঠে এসেছে। রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা, দুর্নীতি ও নিরাপত্তা ক্ষেত্রে জরিপের অংশগ্রহণকারী ব্যক্তিরা মনে করেন বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান সমস্যা দুর্নীতি। জরিপে ২৪ শতাংশ মানুষ মনে করেন বাংলাদেশে অন্যতম প্রধান সমস্যা দুর্নীতি, ১৬ শতাংশের মতে রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা এবং ১৫ শতাংশ নিরাপত্তাকে সমস্যা মনে করেন।