ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ১:৩০ ঢাকা, মঙ্গলবার  ২৫শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

২১ আগস্টের মাস্টারমাইন্ড আপনারা, ‘ফখরুলকে-কাদের

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার জনক বিএনপি।

গ্রেনেড হামলার এক যুগ পর বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ ঘটনাকে রাজনীতির এক কলংকজনক অধ্যায় বলে স্বীকার করায় তাকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, এ কলংকজনক ঘটনার মাস্টারমাইন্ড আপনারা। বিএনপি, তৎকালীন বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার ও হাওয়া ভবন এর দায় এড়াতে পারবে না।

তিনি আরো বলেন, এ কলংকজনক ঘটনা দ্বারা বিএনপি’র বর্তমান ও ভবিষ্যত কালিমালিপ্ত থাকবে।

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা স্মরণে ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগ আয়োজিত আলোচনা সভা ও সংবাদচিত্র প্রদর্শনী অন্ষ্ঠুানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

আজ শিল্পকলা একাডেমির চিত্রশালা প্লাজায় অনুষ্ঠিত এ স্মরণসভায় প্রধান আলোচক ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী।

বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহম্মদ হোসেন ও প্রধানমন্ত্রীর সহকারী একান্ত সচিব সাইফুজ্জামান শেখর।

সভাপতিত্ব করেন আয়োজক সংগঠনের সভাপতি মাইনুল হোসেন খান নিখিল।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার পর তৎকালীন জোট সরকার এক সদস্যের (জয়নুল আবেদিন কমিটি) তদন্ত কমিটি গঠন করে এর দায় ভারত ও শেখ হাসিনার উপর চাপিয়ে দেয়।

তিনি বলেন, তখন এ ঘটনার তদন্ত করতে ইন্টারপোল ও এফবিআই বাংলাদেশে আসে, কিন্তু তাদের তদন্ত করতে দেয়া হয় না। স্কটল্যান্ড ইয়ার্ডকে তো বাংলাদেশেই আসতে দেয়নি বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার।

সেতু মন্ত্রী বলেন, তৎকালীন জোট সরকারকে বিপাকে ফেলতে শেখ হাসিনার এটা সাজানো নাটক ছিল বলে সে সময় পাকিস্তানী হাইকমিশনার মন্তব্য করেন।

জাতীয় সংসদে তখন এ বিষয়ে কোন আলোচনা করতে দেয়নি উল্লেখ করে তিনি বলেন, বরং বিএনপি নেতা ফজলুর রহমান পটল সংসদে বিশ্রিভাবে বলেন- শেখ হাসিনা ক্ষমতায় যাওয়ার জন্যই এ নাটক সাজিয়েছেন।

বিএনপি-জামায়াত ভেবেছিল ২১ আগস্ট শেখ হাসিনা নিহত হবেন উল্লেখ করে সড়ক মন্ত্রী বলেন, কিন্তু আল্লাহ তাদের আশা পূরণ করেননি। তবে তাদের সাজানো জজ মিয়া নাটক আওয়ামী লীগ ভুলে যায়নি, এ হত্যাকান্ডের বিচার বাংলার মাটিতে হবেই হবে।

শেখ হাসিনার হাত দিয়ে বাংলাদেশের উন্নয়নের ধারা রচিত হবে বলেই সেদিন আল্লাহ তাঁকে রক্ষা করেছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, একমাত্র পরমাণু বোমা ছাড়া বাংলাদেশকে সব সূচকে পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে নিয়ে গেছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা। তাই বঙ্গবন্ধু যে দেশ স্বাধীন করে কোন ভুল করেননি, তা আজ প্রমাণিত।

বাংলাদেশে দু’টি লেগাসি আছে, একটি পলিটিক্যাল ইনডিপেন্ডেন্ট অন্যটি ইকোনোমিক্যাল প্রোগ্রেস উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিশ্বের বুকে যতদিন বাংলাদেশ থাকবে, ততদিন বঙ্গবন্ধু পলিটিক্যাল লেগাসি এবং শেখ হাসিনা ইকোনোমিক্যাল লেগাসি হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বাংলাদেশের গত ৪১ বছরের একমাত্র আপোষহীন, স্বাধীনচেতা, সফল কুটনীতিক, দক্ষ প্রশাসক ও বিচক্ষণ নেতা হলেন শেখ হাসিনা। ইটের ভাগাড়ে দাঁড়িয়ে তিনি যেমন জীবনের জয়গান গেয়ে যান, তেমনি আবার ধ্বংসস্তৃপের উপরে দাঁড়িয়ে সৃষ্টির ফুলও ফোঁটান। গত ৪১ বছরে জীবনের ঝুঁকিতে থাকা একমাত্র রাষ্ট্রনায়কও হলেন বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা।

সেতু মন্ত্রী বলেন, তাই দেশে যে উন্নয়নের ধারা চলছে তা অব্যাহত রেখে দেশকে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করতে আমাদের সকলের মেধা, মনন, শ্রম, ঘামসহ সবকিছু দিয়ে শেখ হাসিনার পাশে থাকতে হবে। তাহলে সেদিন আর বেশি দূরে নয়, যেদিন বাংলাদেশের নাম বিশ্বে জ্বলজ্বল করে জ্বলবে।