Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

ভোর ৫:১১ ঢাকা, বুধবার  ২১শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

২০১৯ সালের আগে এদেশে নির্বাচন হবে না

আওয়ামী লীগের সভাপতি মন্ডলীর সদস্য এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার আন্দোলনের হুমকির জবাবে বলেছেন, বিএনপি নেত্রী যতোই আন্দোলনের হুমকি দেন, ২০১৯ সালের একদিন আগেও এদেশে নির্বাচন হবে না।
তিনি বলেন, ৫ জানুয়ারি নির্বাচন না হলে দেশে মার্শাল ল জারি হতো। সেই সেনা শাসনের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করেছেন শেখ হাসিনা। বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া সেই নির্বাচন বানচাল করতে না পেরে এখন হুমকি দিচ্ছেন।
নাসিম আজ বুধবার দুপুরে বগুড়া জেলা স্কুল মাঠে জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রাধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মমতাজ উদ্দিনের সভাপতিত্বে সম্মেলনে দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ এমপি ও এডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মান্নান এমপি, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা আব্দুর রহমানএমপি ও এইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, পাট ও বস্ত্র প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম, এসএম কামাল হোসেন, বগুড়া-৪ আসনের সংসদ সদস্য হাবিবর রহমান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন উপলক্ষে সকাল থেকে ঘন কুয়াশা ও শীত উপেক্ষা করে বিভিন্ন উপজেলা থেকে হাজার হাজার নেতা-কর্মী শহরে আসতে শুরু করে। বেলা ১২টার মধ্যে সম্মেলনস্থল বগুড়া জেলা স্কুল মাঠ পূর্ণ হয়ে যায়। মাঠে ঢুকতে না পেরে বাড়তি লোকজন জেলা স্কুলের আশপাশে এবং সাতমাথা চত্বরে নেতা-কর্মীরা অবস্থান নেয়।
আন্দোলন করে সরকার পতনের হুমকির জবাবে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, তাদের আন্দোলনের হুমকিতে সরকার চিন্তিত নয়। কিন্তু আন্দোলনের নামে অতীতে তারা যুদ্ধাপরাধী জামায়াতকে সঙ্গে নিয়ে জ্বালাও, পোড়াও, পুলিশ হত্যাসহ যে নৈরাজ্য সৃষ্টি করেছিল তা দেশবাসী ভুলে যাননি। ভবিষ্যতে এমন নৈরাজ্য সৃষ্টির চেষ্টা করা হলে সরকার কঠোর হাতে দমন করবে।
যারা জনবিচ্ছিন্ন তাদের ডাকে কেউ সাড়া দেবেনা উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, যত আন্দোলনের হুমকিই তারা দিক না কেন, জনগণের ভোটে নির্বাচিত বর্তমান সরকার তার দেয়া প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী উন্নয়ন কাজ অব্যাহত রাখবে। দেশবাসীই আওয়ামী লীগ ও বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার কাজের যথাযথ মূল্যায়ন করবে। বর্তমান সরকারে আমলে দেশবাসী শান্তি ও স্বস্তিতে থাকার কারনেই বিএনপি-জামায়াতের আন্দোলনের পালে বাতাস লাগবে না।
মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন না। কারণ প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা কখনো স্বাধীনতা বিরোধীদের প্রতিষ্ঠিত করতে পারেন না। তিনি মনেপ্রাণে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাস করতেন না বলেই তার পক্ষে এটি সম্ভব হয়েছিলো।
বিএনপির আন্দোলনের হুমকির জবাবে তিনি বলেন, মিডিয়ার সামনে ছাড়া বিএনপির আর কোথাও আন্দোলন নেই। তাঁরা মিডিয়ার সামনে বসে বাঘের গর্জন দেয়। তাদের আন্দোলনের সামর্থ এবং জনসমর্থন না থাকার কারণে এখন বিদেশীদের কাছে ধর্ণা দিচ্ছে। যেন বিদেশীরা তাদের ক্ষমতায় বসিয়ে দেয়। কিন্তু তাদের এসব ষড়যন্ত্রে কোন কাজ হবে না।