Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ৪:২০ ঢাকা, সোমবার  ১৯শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

বিদ্যুৎ

‘১৮৪০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ যোগ হচ্ছে’

চলতি বছর দেশে দশটি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের মাধ্যমে উৎপাদিত ১ হাজার ৮৪০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রিডে যোগ হবে।

বিদুৎ ও জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক প্রকৌশলী মোহাম্মদ হোসেন বলেন, “প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার ভিশন ২০২১ বাস্তবায়নের জন্য বিদ্যুৎ উৎপাদনে দেশের স্বয়ম্ভরতা অর্জনে বেশ কিছু উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।”

তিনি বলেন, চলতি বছরে সরকারী ৮টি বিদ্যুৎ কেন্দ্রে ১ হাজার ৬২৩ মেগাওয়াট এবং বেসরকারী ২টি কেন্দ্রের মাধ্যমে ২১৭ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

প্রকৌশলী হোসেন বলেন, বিগত ৮ বছরে সরকার দেশে ৮১টি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের মাধ্যমে ১০ হাজার ৩৫৩ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে সক্ষম হয়েছে এবং দেশের ৭৮ ভাগ মানুষ বিদ্যুতের আওতায় এসেছে।

মহাপরিচালক বলেন, ‘প্রধান মন্ত্রীর গতিশীল নেত্বেত্বে বর্তমান সরকার বিদ্যুৎ উৎপাদন ৪ হাজার ৯৪২ মেগাওয়াট থেকে ১৫ হাজার ২৯৫ মেগাওয়াটে বৃদ্ধি করতে সক্ষম হয়েছে।’

সরকারী কেন্দ্রসমূহে মধ্যে মার্চে শাহাবাজপুর কেন্দ্র ১১০ ও ভেড়ামারা ৪১৪, জুনের মধ্যে আশুগঞ্জ ৩৮১, চাপাইনবাবগঞ্জে ১০৪ ও ঘোরাশালে ২৫৪, আগস্টে সিদ্দিরগঞ্জে ১৩৫, সেপ্টেম্বরে সিরাজগঞ্জে ১৫০ এবং অক্টোবরে শিকলবাহাতে ৭৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হবে।

বেসরকারী কেন্দ্র কমলাঘাটে ৫৪ মেগাওয়াট জুনে ও কুষ্টিয়াতে ১৬৩ মেগাওয়াট জুলাইয়ের মধ্যে উৎপাদনে যাবে।

আগামী ২০২১ সালে দেশে বিদ্যুৎ চাহিদা হবে ১৮ হাজার ৮শ’ মেগাওয়াট। অপরদিকে উৎপাদন পরিকল্পনা রয়েছে ২৪ হাজার মেগাওয়াটের।

২০২১ সালের মধ্যে সারাদেশকে বিদ্যুতের আওতায় আনার পরিকল্পনার অংশ হিসাবে সরকার আগামী ২০১৮ নাগাদ ৪৮৬ উপজেলার মধ্যে ৪৬৫টি বিদ্যুতের আওতায় আনবে।

দেশে বিদ্যুৎ ব্যবহারকারীর সংখ্যা ২ কোটি ৩২ লাখ। তবে পল্লী বিদ্যুৎ বোর্ড চলতি বছরে দেশে আরো ৩০ লাখ বাড়িতে সংযোগ প্রদানের পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে।

একই সাথে সরকার উৎপাদনের পাশাপাশি সঞ্চালন লাইনের সম্প্রসারন ও বিতরণ এবং অন্যান্য সেক্টরের সক্ষমতা বাড়াতে কাজ করছে, যাতে করে ২০২১ সালের মধ্যে দেশ একটি মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হতে পারে। বাসস