ব্রেকিং নিউজ

রাত ১২:৫১ ঢাকা, রবিবার  ২২শে জুলাই ২০১৮ ইং

১০ দিনের সফর শেষে প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরেছেন

শীর্ষ মিডিয়া ২ অক্টোবর  : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যে তাঁর ১০ দিনের সফর শেষে আজ বৃহস্পতিবার সকালে লন্ডন থেকে দেশে ফিরেছেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ভিভিআইপি ফ্লাইট বিজি-০০৬ সিলেট ওসমানি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হয়ে আজ স্থানীয় সময় সকাল ১০টা ৪০ মিনিটে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে।
প্রধানমন্ত্রীকে অভ্যর্থনা জানাতে বিমানবন্দরে অন্যান্যের মধ্যে জাতীয় সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাহারা খাতুন, প্রধানমন্ত্রীর প্রতিরক্ষা বিষয়ক উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) তারিক আহমেদ সিদ্দিক, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব আব্দুস সোবহান শিকদার ও প্রেস সচিব এ কে এম শামীম চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।
প্রধানমন্ত্রী ৬৯তম জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে যোগ দিতে গত ২২ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কে যান। তিনি সেখান থেকে ২৯ সেপ্টেম্বর ব্যক্তিগত সফরে লন্ডনে যান।
প্রধানমন্ত্রী গত ২৭ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে ভাষণ দেন। ভাষণে তিনি বিশ্বে নিরাপত্তা পরিস্থিতির অবনতি এবং ধর্মীয় জঙ্গিবাদের উত্থান ও বিশ্বের বিভিন্ন এলাকায় চরমপন্থীর উত্থানে উদ্বেগ প্রকাশ করেন। তিনি বিশ্বে শান্তি, নিরাপত্তা ও উন্নয়নের রক্ষক হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে জাতিসংঘের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, জাতির সম্প্রীতি বিনষ্টকারী অশুভ শক্তিকে নির্মূল করতে হবে।
প্রধানমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ও ফার্স্ট লেডি মিশেল ওবামার দেয়া এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশ্ব নেতৃবৃন্দের সঙ্গে যোগ দেন। তিনি জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি-মুনের দেয়া সংবর্ধনা ও ভোজসভায়ও যোগ দেন।
শেখ হাসিনা জাতিসংঘ জলবায়ু শীর্ষ সম্মেলন-২০১৪ এর উদ্বোধনী অধিবেশনে যোগ দেন এবং শীর্ষ সম্মেলনের ন্যাশনাল এ্যাকশন এন্ড এম্বিশন এনাউন্সমেন্ট অধিবেশনে ভাষণ দেন। তিনি গ্লোবাল এডুকেশন ফার্স্ট ইনিশিয়েটিভের উচ্চ পর্যায়ের আলোচনায়ও অংশ নেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুক্তরাষ্ট্রের ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের সঙ্গেও বৈঠক করেন। বৈঠকে তিনি ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করতে সহায়তা করার জন্য একটি নতুন ব্যবসায়ী অংশীদারিত্ব সৃষ্টির আহ্বান জানান।
প্রধানমন্ত্রী কমনওয়েলথ সরকার প্রধানদের এক আলোচনা অনুষ্ঠানে যোগ দেন এবং জাতিসংঘ সদরদফতরে আন্তর্জাতিক শান্তিরক্ষা অভিযান সংক্রান্ত এক সম্মেলনেও যোগ দেন।
তিনি জাতিসংঘে বাংলাদেশের সদস্যপদ লাভের ৪০ বছর পূর্তি উপলক্ষে জাতিসংঘ সদর দফতরে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানেও যোগ দেন।
প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে যোগদানের পাশাপাশি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী ইরনা সোলবার্গ, বেলারুশের প্রধানমন্ত্রী মিখাল ভি মায়নিকোভিচ এবং নেপালের প্রধানমন্ত্রী সুশীল কৈরালার সাথে পৃথক বৈঠক করেন।
এছাড়া তিনি প্রবাসী বাংলাদেশীদের দেয়া এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানেও যোগ দেন।