Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৬:২৮ ঢাকা, সোমবার  ১৯শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

মুফতি আবদুল হান্নান
মুফতি আবদুল হান্নান, ফাইল ফটো

হাইকমিশনারকে হত্যাচেষ্টা: আসামিদের মৃত্যুদণ্ড বহাল

সাবেক ব্রিটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরী হত্যাচেষ্টা মামলায় মুফতি আবদুল হান্নানসহ ৩ আসামির মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ।

বুধবার সকালে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন চার সদস্যের অপিল বেঞ্চ এই রায় ঘোষণা করেন।

এর আগে মঙ্গলবার হাইকোর্টের দেয়া মৃত্যুদণ্ড রায়ের বিরুদ্ধে মুফতি হান্নানসহ দুই আসামির আপিলের শুনানি শেষ করে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চ রায় ঘোষণার জন্য আজকের দিন ধার্য করেন।

আপিল বেঞ্চের অপর তিন সদস্য হলেন- বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী এবং বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার।

রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বশির আহমেদ।

আর আসামিদের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ আলী ও অ্যাডভোকেট হেলাল উদ্দিন আহমেদ।

রায় ঘোষণার পর এক প্রতিক্রিয়ায় ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বশির আহমেদ বলেন, আপিলে আসামিদের ফাঁসি বহাল রাখা হয়েছে। আসামিরা চাইলে রায়ের বিরুদ্ধে ৩০ দিনের মধ্যে রিভিউ করতে পারবেন।

আসামি পক্ষের আইনজীবী মোহম্মদ আলী জানান, আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায় হাতে পাওয়ার পর তারা রিভিউ করবেন।

সাবেক ব্রিটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরীর ওপর গ্রেনেড হামলা ও তিনজনের মৃত্যুর ঘটনায় করা এই মামলায় ২০০৮ সালে বিচারিক আদালত আসামিদের মৃত্যু দণ্ড দেন।

বিচারিক আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে হরকাতুল জিহাদের (হুজি) শীর্ষস্থানীয় নেতা মুফতি আবদুল হান্নান ও হুজির সিলেট অঞ্চলের সংগঠক শরীফ শাহেদুল আলম ওরফে বিপুল হাইকোর্টে জেল আপিল করেন। শুনানি শেষে চলতি বছরের ১১ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্ট বিচারিক আদালতের মৃত্যুদণ্ডের রায় বহাল রাখেন।

এরপর এই রায়ের বিরুদ্ধে গত ১৪ জুলাই দুই আসামি আপিল বিভাগে আপিল করেন। আজ এই মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত সব আসামির মৃত্যুদণ্ডের রায় আপিল বিভাগেও বহাল থাকলো।

মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্ত অপর আসামি হলেন- দেলোয়ার হোসেন ওরফে রিপন।

এছাড়া এই মামলার যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামি মহিবুল্লাহ ওরফে মফিজুর রহমান ওরফে মফিজ এবং মুফতি মঈন উদ্দিন ওরফে আবু জান্দাল আপিল না করায় তাদের দণ্ড বহাল রয়েছে বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

২০০৪ সালের ২১ মে ব্রিটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরী সিলেটে গেলে হজরত শাহজালাল (রহ.) এর মাজার জিয়ারত করতে যান। সেখানে দরগাহ মসজিদে জুমার নামাজ আদায় শেষে বের হওয়ার সময় প্রধান ফটকের কাছে তাকে লক্ষ্য করে গ্রেনেড হামলা চালানো হয়। ওই হামলায় তিনজন নিহত হন। আহত হন কমপক্ষে ৪০ জন।