Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

সন্ধ্যা ৭:৫৮ ঢাকা, বুধবার  ১৪ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

‘স্ত্রী খুন হওয়ার সংবাদে এসপি বাবুল’

পুলিশ সুপার বাবুল আক্তার ছিলেন জঙ্গিদের আতঙ্ক। একের পর এক জঙ্গি আস্তানা উচ্ছেদ, গ্রেপ্তার আর অস্ত্র উদ্ধার করে প্রশংসিত হয়েছিলেন সবখানে। স্ত্রীর লাশ দেখতে এখন চট্টগ্রামে অবস্থান করছেন তিনি।

নগরীর জিইসি মোড় এলাকায় দুর্বৃত্তদের গুলিতে বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খাতুন ওরফে ‍মিতু আক্তার (৩২) খুন হওয়ার পর চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগের দৃশ্য এটি। রবিবার সকালে স্ত্রী খুনের সময় বাবুল আক্তার ছিলেন ঢাকার পুলিশ হেডকোয়ার্টারে। এরপর সেখান থেকে হেলিকপ্টারে তাকে পাঠানো হয় দামপাড়া পুলিশ লাইন মাঠে। সেখান থেকে গাড়িতে যখন চমেক জরুরি বিভাগে আসেন তখন পৌনে ১১টা।

কিন্তু আসার পরপরই কান্নায় ভেঙে পড়েন অসম সাহসী মানুষটি। মানসিক ভাবে তাকে বিপর্যস্ত দেখাচ্ছিল। চিকিৎসকদের পরামর্শে তাকে স্ত্রীর মরদেহের পাশে না নিয়ে আরএমও’র কক্ষে বসতে দেওয়া হয়। কিছুটা ধীরস্থির বা স্বাভাবিক হলেই মরদেহের পাশে যাওয়ার অনুমতি দেবেন চিকিৎসকরা।