Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

ভোর ৫:৪৩ ঢাকা, রবিবার  ১৮ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

স্ত্রীর পরকীয়ায় বাধার কারনেই ব্যবসায়ী স্বামী খুন

দ্বিতীয় স্ত্রী মৌসুমী আক্তারের (২১) পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় খুন হয়েছেন ব্যবসায়ী আলতাফ হোসেন (৪৫)। এরপর গাজীপুরের ন্যাশনাল পার্কের গজারি বনে তার লাশ ফেলে আসে। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছে গ্রেফতারকৃত মৌসুমী ও তার মামা মাসুম (২৫)।

পরকীয়া প্রেম সন্দেহে পারিবারিক কলহ ও দুই স্ত্রীর মধ্যে সম্পত্তির ভাগবাটোয়ারাকে কেন্দ্র করে তাদের মধ্যে বিবাদ ছিল। এজন্য মৌসুমী তার স্বামী আলতাফ হোসেনকে হত্যার পরিকল্পনা করে। পরিকল্পনায় তার ছোট ভাই ইমন, পরকীয়া প্রেমিক ইমন ও মামা মাসুম ভূঁইয়া ছিলেন। গত ২০ ডিসেম্বর সকালে সাড়ে ১০টার দিকে আলতাফ হোসেন মৌসুমীর বাসায় যায়। সেখানে আগে থেইে ইমনসহ আরো কয়েকজন অবস্থান করছিল। আলতাফ প্রবেশ করা মাত্র মারপিট শুরু করেন তারা। এক পর্যায় গলায় রশি পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে তাকে হত্যা করে। এরপর একদিন ওই বাসায় লাশ রেখে দেয় তারা। গত ২১ ডিসেম্বর সকাল সোয়া ১১ টার দিকে একটি ভাড়া মাইক্রোবাসে করে মৃতদেহ গাজীপুরের জয়দেবপুর থানাধীন ন্যাশনাল পার্কের গজারি বনের মধ্যে ফেলে দেয়। তাদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক গত ২৪ ডিসেম্বর সোয়া ১১ টার দিকে ন্যাশনাল পার্কের গজারি বনের ভিতর থেকে নিখোঁজ আলতাফ হোসেনের মৃতদেহ উদ্ধার করে ডিবি পুলিশ। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ গাজীপুর সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

porokoyaট্রাভেল এজেন্ট ব্যবসায়ী আলতাফ হোসেন যাত্রাবাড়ী থানাধীন কোনাপাড়া এলাকার খান ভবনে ভাড়াটিয়া হিসেবে দ্বিতীয় স্ত্রী মৌসুমী আক্তারসহ বসবাস করতেন। গত ২১ ডিসেম্বর আলতাফের ছোট ভাই জালাল হোসেন তার মোবাইলে ফোন করলে ফোন বন্ধ পায়। তখন দ্বিতীয় স্ত্রী মৌসুমী আক্তারকে ফোন করলে সে কিছু জানে না বলে জানায়। এরপর থেকে জালাল হোসেন বিভিন্ন এলাকায় তার ভাইকে খোঁজ করতে থাকেন। তাকে না পেয়ে গত ২১ ডিসেম্বর যাত্রাবাড়ী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন। সাধারণ ডায়েরীর প্রেক্ষিতে সহকারী পুলিশ কমিশনার মাহমুদ নাসের জনি’র নেতৃত্বে একটি দল তদন্ত শুরু করে। এক পর্যায়ে ডিবি’র দলটি নিশ্চিত হয় যে, ব্যবসায়ী আলতাফ হোসেনের নিখোঁজ হবার ঘটনায় তার দ্বিতীয় স্ত্রী মৌসুমী আক্তারের সম্পৃক্ততা রয়েছে।

গত ২৩ ডিসেম্বর দিবাগত রাত আড়াইটায় মৌসুমী আক্তার এবং সাড়ে তিনটায় তার মামা মাসুমকে কোনাপাড়া এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। মৃত আলতাফ হোসেন নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াইহাজার থানার শখেরগাঁও গ্রামের হাজী বিল্লাল হোসেনের ছেলে। এই ঘটনায় নিহত আলতাফের ভাই জালাল হোসেন বাদী হয়ে যাত্রাবাড়ী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।