ব্রেকিং নিউজ

রাত ৯:০৭ ঢাকা, শনিবার  ২২শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

গয়েশ্বর চন্দ্র রায়
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ফাইল ফটো

‘সৈয়দ আশরাফের কথার মর্ম বুঝতে পরামর্শ’

দেশে জঙ্গিবাদ ঠেকাতে গণতন্ত্রের পথ প্রশস্ত করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। তিনি বলেছেন, গণতন্ত্র যেখানে থাকে না, গণতন্ত্রের অনুপস্থিতিতে গণতন্ত্রের বাইরের শক্তি নানাভাবে সংগঠিত হয়। আজকে যে জঙ্গিবাদের উত্থান ঘটেছে বা ঘটছে, এটা রাষ্ট্রের জন্য, স্বাধীনতার বিরুদ্ধে, গোটা সমাজের বিরুদ্ধে তা হুমকি। সরকারকে বলবো, জঙ্গি দমনের ক্ষেত্রে সবাইকে কাজ করতে দিন, রাস্তায় নামতে দিন। গণতন্ত্রের পথ প্রশস্ত করুন।

আজ দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে জাতীয়তাবাদী কৃষক দলের উদ্যোগে বিএনপির সিনিয়র ভাইস  চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে মুদ্রাপাচার মামলায় উচ্চ আদালতের সাজার প্রতিবাদে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

ক্ষমতাসীন দলের উদ্দেশ্যে গয়েশ্বর রায় বলেন, গণতন্ত্রের পথ যদি সংকুচিত করেন, তাহলে কি হতে পারে আপনাদের পার্টির সেক্রেটারি  জেনারেল সৈয়দ আশরাফ একটা কথা বলেছেন, সৈয়দ বংশের ছেলে.. তিনি কি কথা বললেন, কথাগুলোর মর্ম বুঝতে চেষ্টা করেন, সেই পথে চলুন। সেটা আপনার জন্য মঙ্গল, দেশের জন্যও মঙ্গল। 

বিএনপির সিনিয়র এই নেতা বলেন, জঙ্গিবাদ মোকাবিলায় আমাদের চেয়ারপারসন শর্তহীনভাবে জাতীয় ঐক্যের ডাক দিয়েছেন। অথচ প্রধানমন্ত্রী  উল্টা-পাল্টা নেতিবাচক কথাবার্তা বলেছেন। তিনি জাতীয় ঐক্য করলেন না। আমরা বলতে চাই, আজকে যে সরকারে আছে, আগামীদিন যারা সরকারে আসবে, উগ্রবাদ-জঙ্গিবাদ যদি বিস্তার লাভ করে তাহলে  কোনো সরকারই টেকসই হবে না। আর যদি সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ যদি প্রতিষ্ঠিত হয়ে যায়, দেশে উন্নয়ন তো দূরের কথা,  দেশের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখা অসম্ভব হবে।

তারেক রহমানকে সাজা দেয়ায় সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, তারেক রহমানকে সাজা দিয়ে, খালেদা জিয়াকে সাজা দিয়ে, আমাদের মতো লোককে সাজা দিলেও সরকার নিস্তার পাবে না। আমি বলব, নোংরা মরণ খেলা থেকে সরে এসে গণতন্ত্রের পথে আসুন। জাতীয়তাবাদী কৃষক দলের সাধারণ সম্পাদক  ও বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদুর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় কৃষকদলের সহ-সভাপতি এম এ তাহের, মো. নাজিমউদ্দিন, কেন্দ্রীয় নেতা তকদির হোসেন মো. জসিম, জামালউদ্দিন খান মিলন প্রমুখ বক্তব্য দেন।