ব্রেকিং নিউজ

রাত ২:৫৩ ঢাকা, বুধবার  ১৯শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

মৌচাক মার্কেট সংস্কারের নির্দেশ

সেবাসমূহ চালু রেখে মৌচাক মার্কেট সংস্কারের নির্দেশ

রাজধানীর মৌচাক মার্কেটে সেবাসমূহ গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানির সংযোগ অব্যাহত রেখে স্বাভাবিক অবস্থায় সংস্কারের নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট।

আজ বুধবার দোকান মালিক সমিতির করা আবেদনের শুনানি নিয়ে এ আদেশ দিয়েছে বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি আবু তাহের মো.সাইফুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ।

আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন রেজা-ই-রাব্বি খন্দকার, মো.সাইফুল ইসলাম ও আফরিন জাহান খান।

২০১৪ সালের ৭ মে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক) মৌচাক মার্কেটের ভবন মালিককে একটি চিঠি দেন।
এ চিঠিতে বলা হয়, ইমারতটি জীর্ণ ও দৃশ্যত ঝুঁকিপূর্ণ প্রতীয়মান হওয়ায় বুয়েট পুরকৌশল বিভাগ কতৃক পরীক্ষা-নীরিক্ষাপূর্বক কাঠামোগত উপযুক্ততার সনদ গ্রহণ করে চাওয়া তথ্যাদি এই দফতরে (রাজউক) দাখিল করার জন্য অনুরোধ করা হল। সেইসঙ্গে ভবনটির কাঠামোগত উপযুক্ততা নিশ্চিত হয়ে ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হল।

এরপর বুয়েট নীরিক্ষা করে। আর বুয়েটের সুপারিশসহ প্রতিবেদন রাজউকে দাখিল। এর প্রেক্ষিতে রাজউক গত ২ মে ভবন মালিককে আরেকটি চিঠি দেন।

ওই চিঠিতে বলা হয়, বুয়েট প্রণীত কাঠামোগত মূল্যায়ন প্রতিবেদনের পরামর্শ ও কর্তৃপক্ষের ওই নির্দেশনা স্বত্ত্বেও কাঠামোগত ঝুঁকি হ্রাসে ব্যবস্থা গ্রহণ না করে দায়িত্বহীনভাবে মার্কেট ব্যবহার অব্যাহত রেখেছেন, যা জীবন ও সম্পদের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ এবং ইমারত নির্মাণ আইন-১৯৫২ এর সুষ্পষ্ট লঙ্ঘন।

এ অবস্থায় মার্কেটটির ব্যবহার বন্ধ করে বুয়েট প্রনীত নকশা মোতাবেক বিশেষজ্ঞ প্রকৌশলীর প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে কাজ অবিলম্বে শুরু করার জন্য পুনরায় নির্দেশ দেওয়া হল। কাঠামোগত ঝুঁকিপূর্ণ ভবনটি ব্যবহারের দরুন যে কোনো ধরণের দূর্ঘটনা ঘটলে একমাত্র আপনিই (মালিক) এবং আপনার ব্যবস্থাপনা দায়ী থাকবে এবং ইমারত নির্মাণ আইন ১৯৫২ অনুযায়ী যথাযথ আইননানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এটি চূড়ান্ত নোটিশ বলে গণ্য হবে।

রাজউকের এ চিঠির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে মৌচাক মার্কেটের ভবন মালিক আশরাফ কামাল পাশা হাইকোর্টে এই রিট আবেদন করেন।

গত বছরের ৬ জুন ওই রিটের শুনানি নিয়ে ভবন সংস্কার সম্পন্ন বা বিল্ডিং কোড অনুসারে সনদ না পাওয়া পর্যন্ত রাজধানীর মালিবাগের মৌচাক মার্কেটের দোকানপাট বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট।