ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৫:৫৮ ঢাকা, শুক্রবার  ১৯শে জানুয়ারি ২০১৮ ইং

সার্কিট হাউস ভাড়া দেননি

‘সেই বিচারক সার্কিট হাউস ভাড়া ৯৩,৯৫০ টাকা দেননি’

বরগুনার ইউএনও তারিক সালমানকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়ে সমালোচনার মুখে থাকা বিচারক মোহাম্মদ আলী হোসাইনের নিকট জেলা প্রশাসনের সার্কিট হাউসের ভাড়া বাবদ ৯৩,৯৫০ টাকা বকেয়া রয়েছে। এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসন থেকে লিখিতভাবে অবহিত করা হলেও তিনি ওই টাকা পরিশোধ করেননি বলে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন বরিশালের জেলা প্রশাসক ড. গাজী মো. সাইফুজ্জামান।

তিনি বলেন, বিচারক বরিশাল সার্কিট হাউজের পুরাতন ভবনের সাত নম্বর কক্ষটি ২০১৫ সালের ২৭ অক্টোবর থেকে ২০১৬ সালের ২৮ জুন পর্যন্ত ব্যবহার করেন। কিন্তু ২০১৫ সালের ২৭ অক্টোবর থেকে ১ নভেম্বর পর্যন্ত চার দিনের মোট ৩৯০ টাকা ভাড়া পরিশোধ করলেও বাকি দিনগুলোর কোনো ভাড়া দেননি। সরকারি নীতিমালা অনুযায়ী ওই কক্ষে এক থেকে তিন দিন পর্যন্ত প্রতিদিন ৯০ টাকা হারে এবং চার থেকে সাত দিন পর্যন্ত ১২০ টাকা হারে এবং সাত দিনের ঊর্ধ্বে প্রতিদিনের জন্য চারশো টাকা হিসাবে ভাড়া নির্ধারণ করা আছে। এই হিসাবে ওই বিচারকের কাছে মোট পাওনা হয় ৯৩ হাজার ৯৫০ টাকা।

জেলা প্রশাসক আরো জানান, বকেয়া ভাড়া পরিশোধে ২০১৬ সালের ৪ আগস্ট বিচারক আলী হোসাইনকে বরিশাল জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে নেজারত শাখা থেকে চিঠি দেয়া হয়।

ওই চিঠিতে বলা হয়, ‘সরকারি পাওনা পরিশোধ করার জন্য অত্র কার্যালয়ের বিগত ২৬ মে ২০১৬ তারিখে আপনাকে পত্র প্রেরণ করা হয়। কিন্তু আজ পর্যন্ত কোনো টাকা পরিশোধ করা হয়নি। এরপরও আপনি ধারাবাহিকভাবে ২০১৬ সালের ২৬ জুন পর্যন্ত কক্ষটি ব্যবহার করেছেন। জেলা প্রশাসক বলেন, বিচারক আলী হোসাইন সার্কিট হাউসে থাকাকালীন ওই চিঠি দেয়া হয়। এরপর তিনি সার্কিট হাউস ছেড়ে দেন।

এ বিষয়ে কথা বলার জন্য গণমাধ্যম থেকে বিচারক মোহাম্মদ আলী হোসাইনের ব্যবহৃত মোবাইলে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তা বন্ধ পাওয়া যায়। এ কারণে তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

প্রসঙ্গ, বরগুনা সদরের ইউএনও তারিক সালমান বরিশালের আগৈলঝড়ার ইউএনও থাকাকালে বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃতির অভিযোগে বিচারক আলী হোসাইনের আদালতে মামলা হয় গত ৭ জুন। বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনে শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় স্থান অর্জনকারী অদ্রিজা করের ছবি ব্যবহার করে ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসের আমন্ত্রণপত্র ছাপায় উপজেলা প্রশাসন।

বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ও জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি সৈয়দ ওবায়েদ উল্লাহ সাজু ওই ছবি ব্যবহার করায় ইউএনওর বিরুদ্ধে ৫ কোটি টাকার মানহানির মামলা করেন। এই মামলায় গত ১৯ জুলাই ইউএনও তারিক সালমানকে প্রথমে কারাগারে পাঠান বিচারক। কিন্তু পরে আদেশ পাল্টে জামিন দেন। এই ঘটনায় ইউএনওর বিরুদ্ধে মামলায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক সমালোচনা হয়। ইতিমধ্যে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে মামলার বাদী সাজুকে দল থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।