ফাইল ফটো

‘সুষ্ঠু ও বিশ্বাসযোগ্য নিবার্চনের মাধ্যমে সরকারের গ্রহণযোগ্যতা বৃদ্ধি সম্ভব’

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি এইচ এম এরশাদ বলেছেন, সুষ্ঠু ও বিশ্বাসযোগ্য নিবার্চনের মাধ্যমে সরকারের গ্রহণযোগ্যতা বৃদ্ধি সম্ভব। তিনি বলেন, আগামী দিন কী হবে তা নিয়ে মানুষের মনে আশংকা রয়েছে। দেশে নাগরিকদের নিরাপত্তার অভাব রয়েছে, দেশবাসী তাদের জীবনের নিরাপত্তা চায়। শান্তিতে বাস করতে চায়।
মঙ্গলবার দুপুরে লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী স্থলবন্দর দিয়ে ভারতে যাওয়ার আগে তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, আসন্ন পৌরসভা নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হবে কি না, তা নিয়ে সাধারণ মানুষের মনে সংশয় রয়েছে। তাই নির্বাচন যদি সুষ্ঠু ও বিশ্বাসযোগ্য হয় তাহলে সাধারণ মানুষের কাছে বর্তমান সরকারের গ্রহণযোগ্যতা বৃদ্ধি পাবে।
এরশাদ বলেন, জাতীয় পার্টি এই নির্বাচনে অংশ নিয়েছে। কিছু পৌরসভায় মেয়র প্রার্থী দেয়া হয়েছে। কিন্তু অনেক প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার সময় হুমকি-ধামকির শিকার হয়েছে। তাই নির্বাচন সুষ্ঠু হবে কি না? এমন প্রশ্ন সাধারণ মানুষের মাঝে বিরাজ করছে।
তিনি আরো বলেন, এই নির্বাচন সুষ্ঠু ও বিশ্বাসযোগ্য করার কারণে যদি আওয়ামী লীগের সকল প্রার্থী হেরেও যায়। তাতেও সরকারের ক্ষমতা যাবে না। তাই সুষ্ঠু ও বিশ্বাসযোগ্য নিবার্চনের মাধ্যমে সরকারের গ্রহণযোগ্যতা বৃদ্ধি সম্ভব বলে মনে করেন সাবেক এই রাষ্ট্রপতি।
বিএনপি দেশে প্রতিহিংসার রাজনীতি শুরু করেছিল উল্লেখ করে এরশাদ বলেন, যে বিএনপি একদিন জাতীয় পার্টিকে নিঃশেষ করার চক্রান্ত করেছিল। জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীদের জেলে পুরেছিল। আমাকে স্ব-পরিবারে জেলে পাঠিয়েছিল। সেই বিএনপিই আজ নিঃশেষের পথে।
মঙ্গলবার দুপুরে এইচ এম এরশাদ তিন দিনের সফরে তার পৈত্রিক নিবাস ভারতের কোচবিহার জেলার দিনহাটায় যান। তার সাথে রয়েছেন ছেলে এরিক এরশাদ, ছোটভাই ও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক মন্ত্রী গোলাম মোহাম্মদ কাদের, ব্যক্তিগত সহকারী আব্দুল ওহাব ও গাড়ী চালক আব্দুল মান্নান।
এর আগে বুড়িমারী স্থলবন্দর কাস্টমসের সহকারী কমিশনার এনামুল হকের আমন্ত্রণে তার কার্যালয়ে চা-চক্রে অংশ নেন তিনি।
এ সময় জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, সেই স্কুল জীবনে ভারতের পৈত্রিক নিবাস ছেড়ে এসেছি। সেখানে আমার অনেক স্মৃতি জড়িয়ে আছে।