Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ৩:৩২ ঢাকা, বুধবার  ২১শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

সিভিল প্রশাসনকে দলীয়করণ করা হয়েছে

আজ শনিবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার কাঁচপুর বালুর মাঠে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০-দলীয় জোটের জনসভায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেন, সিভিল প্রশাসনকে দলীয়করণ করা হয়েছে। মিথ্যা কথা বলে ভালো ভালো সরকারি কর্মকর্তাদের চাকরি থেকে সরানোর চেষ্টা চলছে ।
বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া নারায়ণগঞ্জের সাত খুনের কথা উল্লেখ করে বলেন, সবাই বলে সেখানে সাতজন খুন হয়েছেন। আসলে সাতজন নয়, ১১ জনকে হত্যা করা হয়েছে। হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে সরকার জড়িত বলে অভিযোগ করেন তিনি। খালেদা জিয়া বলেন, নারায়ণগঞ্জের হত্যাকাণ্ডে জড়িত কর্নেল জিয়াকে ধরা হচ্ছে না। কারণ, তাঁকে ধরলে সব গোপন তথ্য বের হয়ে যাবে। কর্নেল জিয়ার ক্ষমতায় থাকার যোগ্যতা নেই। অবিলম্বে তাঁকে ক্ষমতা থেকে সরাতে হবে। তিনি প্রশ্ন তুলে বলেন, ‘খুনি হয়েও জিয়া কেন চাকরিতে থাকবে?’গ্যাসের দুরবস্থার কথা উল্লেখ করে খালেদা জিয়া বলেন, রাজধানীর গুলশানের মতো জায়গায় মানুষ গ্যাস পায় না। মানুষ গ্যাস, বিদ্যুৎ পায় না। আবার সরকার নতুন করে গ্যাসের দাম বাড়ানোর পাঁয়তারা করছে। বলছে, গ্যাস, বিদুৎ, জ্বালানি তেলের দাম বাড়াবে। আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমে গেছে। গ্যাস, বিদ্যুৎ, জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানো যাবে না, বরং কমাতে হবে। যদি দাম বাড়ানো হয়, তাহলে ২০–দলীয় জোট ঘরে বসে থাকবে না। এ সময় তিনি জনগণের উদ্দেশে বলেন, ‘কর্মসূচি দিলে পালন করবেন?’ সবাই ইতিবাচক উত্তর দিলে তিনি বলে ওঠেন ‘শাবাশ, শাবাশ।’আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলেই দেশে গুম, খুন, অত্যাচার বেড়ে যায়, বলে মন্তব্য করেন খালেদা জিয়া। তিনি বলেন, গুম হওয়া পরিবারের স্বজনেরা এখনো কাঁদছেন। গুম হওয়া ব্যক্তিরা কবে ফিরবেন, স্বজনেরা জানেন না।খালেদা জিয়া আরও বলেন, সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরওয়ার ও মেহেরুন রুনীর খুনিরা ধরা পড়েনি। আওয়ামী লীগ যতদিন ক্ষমতায় থাকবে ততদিন খুনিরা ধরা পড়বে না বলে মন্তব্য করেন তিনি।বর্তমান সরকার জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়নি বলে মন্তব্য করেন খালেদা জিয়া। তিনি বলেন, এই সরকার ভাগ–বাঁটোয়ারার সরকার। বিএনপি নির্বাচনে যায়নি বলে জনগণও ভোটকেন্দ্রে যায়নি।খালেদা জিয়া বলেন, তাঁরা দাবি করেন অনেক বিদ্যুৎ উৎপাদন করেছে। শীত পড়েছে, তাই লোডশেডিং কম। কিন্তু গরমে লোডশেডিং বেশি ছিল।