ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৭:৩৩ ঢাকা, সোমবার  ২২শে অক্টোবর ২০১৮ ইং

সিপিবি ও বাসদের বিক্ষোভ মিছিলে হামলা

রংপুরের মিঠাপুকুরে গ্যাস বিদ্যুতের দাম কমানোর দাবিতে সিপিবি ও বাসদের বিক্ষোভ মিছিলে হামলা চালিয়েছে পুলিশ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীরা।

এ সময় পুলিশের লাঠিচার্জ, গুলি ও টিয়ারশেলের আঘাতে দুই নারীসহ ২২ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ১৫ জনকে আটক করা হযেছে।
বুধবার সকাল ১১টায় মিঠাপুকুর উপজেলা সদরে ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে অবস্থান নিয়ে সমাবেশ করেন নেতাকর্মীরা। সমাবেশ শেষে মিছিল নিয়ে অগ্রসর হলে ১২টার সময় পুলিশ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের সশস্ত্র নেতাকর্মীরা হামলা চালায়।
এ ঘটনায় এলাকায় আতংক বিরাজ করছে। পরে হামলাকারী স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীরা সশস্ত্র মহড়া দেয়।
প্রত্যক্ষদর্শী ও সিপিবির রংপুর জেলা কমিটির সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শাহীন রহমান জানান, পুলিশ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের সশস্ত্র নেতাকর্মীরা বাসদের দুই নারী কর্মীকে বেধড়ক পিটিয়ে মাঠিতে ফেলে দেয়। এরপর বিভিন্ন দোকানপাটে আশ্রয় নেয়া নেতাকর্মীদের ধরে এনে পেটানো শুরু করে পুলিশ।
এ সময় কয়েক রাউন্ড গুলি ও টিয়াশেল নিক্ষেপ করা হয়। প্রায় ১৫ জন নেতাকর্মী আহত হয়ে সড়কের ওপর পড়ে থাকে। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে মিঠাপুকুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।
হাসপাতাল থেকে নিয়ে গেলে আহত অবস্থায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীরা অনিক, ফজলু, রতন ও নাহিদকে ধরে পুলিশে দেয়। এছাড়া বাসদের রংপুর জেলা সমন্বয়ক আব্দুল কুদ্দুসকেও আটক করে পুলিশ।
সিপিবি জেলা সভাপতি ও কেন্দ্রীয় নেতা শাহাদত হোসেন জানান, আহতদের মধ্যে পাঁচজনের অবস্থা গুরুতর।
এদিকে ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে এক সংবাদ সম্মেলন করেছে সিপিবি ও বাসদের জেলা নেতারা। এতে বলা হয়, এ হামলার ঘটনা গণতন্ত্রকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। পুলিশ জনগণের সেবক। কিন্তু পুলিশ দলীয় ক্যাডার বাহিনীর ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে।
মিঠাপুকুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবীর গনমাধ্যমকে জানিয়েছেন, সড়কে যানজট মুক্ত করতে গেলে বিক্ষোভকারীদের সাথে সংঘর্ষ হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে টিয়াশেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করা হয়েছে।