ব্রেকিং নিউজ

রাত ২:৩১ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ২০শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

সিদ্ধান্ত জানতে কারাগারে দুই ম্যাজিস্ট্রেট

মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপি নেতা সালাহউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরী  ও জামায়াত নেতা আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের সিদ্ধান্ত জানতে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে গেছেন দুইজন ম্যাজিস্ট্রেট। শনিবার সকাল পৌনে ১০টার দিকে তারা কারাগারে প্রবেশ করেন।
কারাগার সূত্র জানায়, তাদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার আগে সর্বশেষ আইনি প্রক্রিয়া হিসেবে দণ্ডপ্রাপ্তরা রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন করবেন কিনা বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার জন্যই তাদের সাথে দেখা করতে গেছেন দুইজন ম্যাজিস্ট্রেট।
১৯৭১ সালে মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত এই দুজন রায় পুর্নবিবেচনার যে আবেদন করেছিলেন, তা গত বুধবার আপিল বিভাগ নাকচ করে দেয়। পরে বৃহস্পতিবার বিচারকরা এই রায়ের নথিতে স্বাক্ষর করেন। এরপর আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত হয়ে বৃহস্পতিবার ফাঁসির দন্ডের আদেশ কারা কর্তৃপক্ষের কাছে পৌঁছে।
এরপরই কারা কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে দুজনকে তাদের রায় পড়িয়ে শোনা হয়। পরে তাদের কাছ থেকে জানতে চাওয়া হয়, তারা প্রাণভিক্ষা চাইবেন কিনা। তখন এ বিষয়ে তারা কোন সিদ্ধান্ত জানাননি।
এদিকে শুক্রবার দুই দফা সাকার পরিবার ও তার আইনজীবীরা সাকা চৌধুরীর সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে অনুমতি না পেয়ে কারাফটক থেকে ফিরে আসেন। মুজাহিদের আইনজীবীরাও তার সঙ্গে সাক্ষাত চেয়ে আবেদন করে অনুমতি পাননি। তবে সাকার পরিবার বলছে, তারা আজ আবার সাক্ষাত চেয়ে কারা কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করবেন।
এই পরিপ্রেক্ষিতে সকালে দুইজন ম্যাজিস্ট্রেট সাকা ও মুজাহিদের সঙ্গে দেখা করতে কারাগারে প্রবেশ করলেন। একজন উর্ধ্বতন কারা কর্মকর্তা জানান, আজ কারা কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে তাদের কাছ থেকে জানতে চাওয়া হবে তারা প্রাণভিক্ষার আবেদন করবেন কিনা। ওই দুই ম্যাজিস্ট্রেট বেরিয়ে আসার পর সাকা-মুজাহিদের ব্যাপারে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে। দণ্ডিতরা প্রাণভিক্ষার আবেদন করলে তা রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে। তা না হলে ফাঁসি কার্যকরের পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে।

এদিকে গতকাল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানিয়েছেন, মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরী এবং আলী আহসান মুজাহিদের তরফ থেকে প্রাণভিক্ষার আবেদন করা হবে কিনা, সেই সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছেন তারা।