Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

সন্ধ্যা ৬:০৭ ঢাকা, বুধবার  ১৪ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

সিডনিতে জিম্মিদের ইসলামী পতাকা ধরে রাখতে বাধ্য করে

অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে জনবসতিপূর্ণ নগরী সিডনির কেন্দ্রস্থলে একটি ক্যাফের ভেতরে সোমবার কমপক্ষে এক বন্দুকধারী কয়েক ব্যক্তিকে জিম্মি করেছে। টেলিভিশনের ফুটেজে দেখা গেছে, জিম্মিরা হাত তুলে দাঁড়িয়ে আছেন এবং তাদেরকে কালো রঙের আরবীতে লেখা একটি ইসলামী পতাকা ধরে রাখতে বাধ্য করা হয়েছে। বার্তা সংস্থা এএফপি’র খবরে বলা হয়েছে, মার্টিন প্লেস বাণিজ্যিক এলাকায় অবস্থিত লিন্ডট চকোলেট ক্যাফেতে এ ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ এলাকাটি বন্ধ করে দিয়েছে। এছাড়া সশস্ত্র পুলিশের একটি দল ক্যাফেটি ঘিরে রেখেছে। জিম্মি পরিস্থিতির অবসানে পুলিশি অভিযান চলছে।
ক্যাফে থেকে ৫ জনকে পালিয়ে যেতে দেখা গেছে। তবে কতজন ভিতরে জিম্মি রয়েছে তা স্পষ্ট নয়। পুলিশ জানিয়েছে, বন্দুকধারীর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হচ্ছে।
প্রধানমন্ত্রী টনি অ্যাবোট হামলার ঘটনাকে ‘ভয়ঙ্কর’ উল্লেখ করে বলেছেন, এটা রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হতে পারে। জানালার সামনে একটি কালো ইসলামী পতাকা প্রদর্শন করা হচ্ছে।
ক্যাফেতে জিম্মি সংকট সৃষ্টি হওয়ার ছয় ঘন্টা পর তিনজনকে ভবন থেকে পালিয়ে যেতে দেখা যায়। এর এক ঘন্টা পর আরো দুই জন তাদেরকে অনুসরণ করেন। তবে তাদের পালিয়ে যাওয়ার বিষয়টি স্পষ্ট নয়।
নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্য পুলিশের উপ-কমিশনার ক্যাথরিন বার্ন বলেণ, ‘আমরা আরো তথ্য পাওয়া চেষ্টা করছি। এই মুহূর্তে কারো ক্ষতি হয়েছে কিনা তা জানা যায়নি।’
তিনি বলেন, বন্দুকধারীর সঙ্গে এখন যোগাযোগের চেষ্টা করছে পুলিশ।
নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্য পুলিশের কমিশনার অ্যান্ড্রু সাইপিয়ন বলেন, ‘আমি নিশ্চিত করতে পারি যে, মার্টিন প্লেস এলাকায় ওই ভবনের ভেতরে এক অস্ত্রধারী রয়েছে। সে অজ্ঞাত সংখ্যক মানুষকে জিম্মি করেছে। একে সন্ত্রাসী ঘটনা হিসেবে এখন পর্যন্ত বিবেচনা করা হচ্ছে না। আমরা জিম্মি পরিস্থিতি মোকাবিলা করছি। আমরা শান্তিপূর্ণভাবে সমস্যার সমাধান চাই। এ জন্য সবকিছুই করা হবে।’
তিনি বলেন, মার্টিন প্লেসের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে। তিনি নগরীর অন্যান্য এলাকায় এ ধরণের আরো ঘটনার খবরের গুজব নাকচ করে দেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা এক ব্যক্তিকে ব্যাগ ও বন্দুক হাতে ক্যাফেতে ঢুকতে দেখেন। পুলিশ এখন গোটা এলাকা বন্ধ করে দিয়েছে।
লিন্ডট কোম্পানির পক্ষ থেকে জানানো হয়, ক্যাফের ভেতরে অন্তত ১০ জন কর্মী ও ৩০ জন ক্রেতা থাকতে পারেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।
ফেসবুকে এক বিবৃতিতে কোম্পানি জানায়, গুরুতর এই ঘটনা গভীর উদ্বেগজনক।
টেলিভিশনের ফুটেজে দেখা গেছে, ক্যাফের ভেতরে জানালার সামনে কমপক্ষে তিন ব্যক্তি হাত তুলে দাঁড়িয়ে আছেন। তারা ক্যাফের কর্মী বলে ধারণা করা হচ্ছে। তাদেরকে কালো রঙের একটি পতাকা ধরে রাখতে বাধ্য করা হয়েছে। ওই পতাকার মধ্যে সাদা হরফে আরবি লেখা রয়েছে।