Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

সন্ধ্যা ৬:৪৭ ঢাকা, বুধবার  ২১শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের
সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, ফাইল ফটো

‘সাম্প্রদায়িকতার মূলোৎপাটন ছাড়া নজরুলের জন্মদিন পালন সার্থক হবে না’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, জনগণকে সঙ্গে নিয়ে সাম্প্রদায়িকতার বিষবৃক্ষের মূলোৎপাটন করতে না পারলে কাজী নজরুল ইসলামের জন্মদিন পালন সার্থক হবে না।

আজ বৃহস্পতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মসজিদ চত্বরে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের একশ আঠারোতম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে তাঁর কবরে আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন ও সর্বস্তরের মানুষ শ্রদ্ধা জানায়।

কাজী নজরুলকে প্রেমের কবি, যৌবনের কবি, মানবতার কবি, সাম্যের কবি ও জাতীয় কবি উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘নজরুল প্রতিদিনই আমাদের কাছে প্রাসঙ্গিক। বাঙালির জাতীয় জীবনে বঙ্গবন্ধু ও রবীন্দ্রনাথের মতো তিনি আমাদের প্রতিটি নিশ্বাসে ও প্রতিটি বিশ্বাসে প্রাসঙ্গিক। সেকালে তিনি, একালে তিনি, তিনি চিরকালীন।’

নজরুলের সাহিত্যকর্মের অনুবাদ করার যে দাবি কবির নাতনি খিলখিল কাজী তুলেছেন, সে প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘তাঁর দাবিটি সমগ্র জাতির দাবি। আমি যতটুকু জানি, সাহিত্যকর্মের অনুবাদ বিভিন্ন ভাষায় হয়েছে। তবে তাঁর পরিমাণ বৃদ্ধি করে তাঁর মেধা সৌরভ ও গৌরব ছড়িয়ে দেওয়া উচিত।’

এ ব্যাপারে উদ্যোগ নেওয়ার জন্য সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়কে বিশেষভাবে অনুরোধ করবেন বলে জানান কাদের।

এ সময় আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক আবদুস সবুর, সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী ও উপ-দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, যতো ধরণের সংকট আছে তা কাটিয়ে ওঠার জন্য শক্তি পাই আমরা নজরুল রচনাবলীতে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সত্য লড়াইয়ে কবি নজরুল আমাদের প্রেরণার উৎস হয়ে আছেন সবসময়।

সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেন, শুধু আবেগ, ভালোবাসাই যথেষ্ট নয়, নজরুলকে জানতে হলে পড়তে হবে, চর্চা করতে হবে এবং সেই চর্চাটা ছড়িয়ে দিতে হবে।

কবির নাতনী খিলখিল কাজী বলেন, ‘শুধু জাতীয় কবি বললেই হবে না। জাতীয় পর্যায়ে সর্বত্র তার গান, কবিতা, সাহিত্য আমাদের ব্যবহার করতে হবে। সারা বছর ধরে যেনো আমরা তাকে নিয়ে কাজ করতে পারি।’

এছাড়াও বাংলা একাডেমি, শিল্পকলা একাডেমি, জাতীয় জাদুঘর, জাতীয় আর্কাইভস ও গ্রন্থাগার, নজরুল ইনস্টিটিউট, শিশু একাডেমি, নজরুল একাডেমি ছাড়াও বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা জানানো হয় নজরুল সমাধিতে।

সমাধিসৌধের পাশে ছিল আলোচনা পর্বের আয়োজন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা সেখানে আলোচনায় অংশ নেন। সংগীত পরিবেশন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীত বিভাগের শিল্পীরা।