Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৬:৩৮ ঢাকা, বুধবার  ২১শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

ফখরুল ইসলাম আলমগীর
বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ফাইল ফটো

সাবেক বিচারপতি শামসুদ্দিনের বিচার হওয়া উচিৎ : ফখরুল

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা সম্পর্কে অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি এ এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরীর দেয়া বক্তব্যকে ‘আদালত অবমাননাকর’ বলে মন্তব্য করে বলেছেন, ষোড়শ সংশোধনীর রায় নিয়ে মন্তব্য করা সংবিধানের লঙ্ঘন। শামসুদ্দিন চৌধুরী যে ভাষায় কথা বলেছেন, ভদ্রতা, সৌজন্যবোধ সব কিছুর বাইরে গিয়ে তিনি যে একটা অপরিশীলিত, অমার্জনীয় কথাবার্তা বলেছেন- এগুলো অবশ্যই আদালত অবমাননা। আমি মনে করি যে, এগুলো আমলে নিয়ে তার বিচার হওয়া উচিৎ। তার বিচার হতে হবে।

আজ সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের পাশে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর সাংবাদিকদের কাছে এ কথা বলেন ফখরুল।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, শামসুদ্দিন চৌধুরী কোন যোগ্যতায় বিচারপতি পদে নিয়োগ পেয়েছিলেন, তা আমার জানা নাই। তার বিচারপতি হওয়ার যোগ্যতার ব্যাপারটি দেশের জনগণ বিবেচনা করবেন। আমি শুধু একটি কথা বলতে চাই, ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় আপিল বিভাগের সকলের সর্বসম্মতিক্রমে একটি রায়। এই বিষয়ে যারা প্রশ্ন তোলেন তারা বিচার বিভাগের স্বাধীনতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন, বিচার বিভাগের যে কর্তৃত্ব, জুডিশিয়ারির যে আলাদা ক্ষমতা, সেই ক্ষমতার ওপরে তারা প্রশ্ন তোলেন, তারা সংবিধান লঙ্ঘন করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, শামসুদ্দিন সাহেব এই ধরনেরই কথা বলেন। তার যে বাচনভঙ্গি, তার যে শব্দচয়ন তাতে আমার মনে হয় না যে বিচারপতি হওয়ার ন্যূনতম যোগ্যতা তার ছিল।

মির্জা ফখরুল বলেন, আমাদের কাছে জাতীয় কবি নজরুল ইসলাম একটি আদর্শ, আমাদের প্রেরণা। আমাদের স্বাধীনতার যুদ্ধ, আমাদের স্বাধীকার আন্দোলন, আমাদের মাথা উঁচু করে দাঁড়াবার যে সংগ্রাম সেই সংগ্রামে তিনি আমাদের সব সময় প্রেরণা যুগিয়েছেন। জাতীয় কবির যে অবদান শিল্প-সাহিত্য, দেশপ্রেম, সংগ্রাম- এটা কোনো মতেই তুলনা করা সম্ভব নয়।

এ সময় দলের ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী, যুগ্ম-মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, সহ-দপ্তর সম্পাদক মুনির হোসেন, মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাশার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।