ব্রেকিং নিউজ

রাত ১১:৩২ ঢাকা, শনিবার  ২২শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

সানি লিওনি

সানি লিওনির সাক্ষাৎকার নিয়ে অনলাইনে বিতর্ক

ভারতে বলিউড চলচ্চিত্রের নায়িকা এবং সাবেক পর্নো তারকা সানি লিওনির একটি টিভি সাক্ষাৎকার নিয়ে অনলাইনে ব্যাপক আলোচনা বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে। বলা হচ্ছে, সানি লিওনি পর্নো তারকা হিসেবে তার অতীত জীবন নিয়ে কোন গ্লানি বোধ করেন কিনা – এটা নানাভাবে বার বার জানতে চেয়ে প্রশ্নকর্তা ‘বাজে মানসিকতার’ পরিচয় দিয়েছেন। সিএনএন-আইবিএন চ্যানেলে হট সীট নামের অনুষ্ঠানে সানি লিওনির সাক্ষাৎকার নিচ্ছিলেন ভূপেন্দ্র চৌবে। সমালোচকরা বলছেন, সানি লিওনির অতীত নিয়ে বার বার প্রশ্ন করে তিনি ‘নারীবিদ্বেষী’ মানসিকতার পরিচয় দিয়েছেন। ভূপেন্দ্র চৌবে সাক্ষাৎকারের এক পর্যায়ে সানি লিওনিকে জিজ্ঝেস করেন, তার জীবনের সবচেয়ে বড় অনুতাপের বিষয় কি। জবাবে সানি লিওনি বলেন, তার মায়ের মৃত্যুর সময় পাশে থাকতে না পারা। কিন্তু চৌবে এর পর আবার ওই একই প্রশ্ন করেন। অনেকে বলছেন, মি. চৌবে আসলে জানতে চাইছিলেন : সানি লিওনি তার পর্নো তারকা জীবন নিয়ে অনুতপ্ত কি না। এর কিছু পরে মি. চৌবে আবার প্রশ্ন করেন, ‘আপনি মুম্বাইয়ের সিনেমায় আসার পর ভারতে পর্নো ছবি দেখার পরিমাণ বেড়ে গেছে। এ দুটোর মধ্যে কি কোন সম্পর্ক আছে?’ সানি লিওনি জবাব দেন: ‘না, নেই। ‘চৌবে এর পর বলেন, “ভারতে অনেকে মনে করেন সানি লিওনির কোন ছবি দেখাটাই একজনকে নষ্ট করে ফেলতে পারে। আপনার সাক্ষাৎকার নিয়ে আমিও নৈতিকভাবে কলুষিত হচ্ছি?” সানি লিওনি জবাব দেন, “আপনি যদি চান তাহলে আমি এখনই চলে যেতে পারি।” এর পরই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মি. চৌবের ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়। এসব বিষয়ে প্রশ্নকর্তা কেন বার বার প্রশ্ন করছিলেন- এ নিয়েই বিতর্ক শুরু হয় অনলাইনে। অনেকে বলেন, ভূপেন্দ্র চৌবে ‘নীচতার পরিচয় দিয়েছেন’। অন্যদিকে সানি লিওনির প্রশংসা করে অনেকে মন্তব্য করেন, তিনি অত্যন্ত শান্তভাবে এবং মর্যাদাবোধের সাথে এসব প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন। সানি লিওনি নিজেও তার প্রশংসাকারীদের ধন্যবাদ দিয়েছেন। আর মি. চৌবে তার ব্লগে লিখেছেন, ‘তার কাজ ছিল প্রশ্ন করা এবং তিনি সেটাই করেছেন।’ সানি লিওনির আসল নাম করনজিৎ কাউর ভোহরা, এবং তিনি পর্নো ছবিতে সফল কেরিয়ার শেষে ২০১৩ সালে অবসর নেন, এবং এর পর মুম্বাইয়ের ছবিতে অভিনয় শুরু করেন। বিবিসি