শীর্ষ মিডিয়া

ব্রেকিং নিউজ

রাত ১১:০৩ ঢাকা, মঙ্গলবার  ১৮ই ডিসেম্বর ২০১৮ ইং

কাতালান নেতা
ব্রাসেলসে কার্লেস পুজডেমন

সহিংসতা ঠেকাতেই দেশ ছেড়েছি : কাতালান নেতা

স্পেনের কাতালান প্রদেশের বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট কার্লেস পুজডেমন রাজনৈতিক আশ্রয়ের উদ্দেশ্যে বেলজিয়াম পালিয়ে আসার কথা অস্বীকার করেছেন।

ব্রাসেলসে তিনি বলেছেন, স্পেনের সরকার যে মারমুখী অবস্থান নিয়েছে তাতে স্পেনের তার উপস্থিতি সহিংস পরিস্থিতি তৈরি করতে পারতো। সে কারণেই তিনি দেশে ছেড়েছেন।

এদিকে কাতালোনিয়ার প্রাদেশিক সংসদের স্পীকার এবং পাঁচ স্বাধীনতাপন্থি এমপির বিরুদ্ধে কেন্দ্রীয় সরকারের আনা দেশদ্রোহের মামলা শুনতে রাজী হয়েছে স্পেনের সুপ্রিম কোর্ট।

কাতালোনিয়ার নেতা কার্লেস পুজডেমন গতকাল ব্রাসেলসে চলে যাওয়ার পর থেকেই জল্পনা চলছিল, তিনি সেখানে রাজনৈতিক আশ্রয় নিতে চলেছেন কীনা।

কিন্তু আজ ব্রাসেলসে এক জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে মিস্টার পুজডেমন রাজনৈতিক আশ্রয়ের জল্পনা নাকচ করে দিয়েছেন। তিনি বলেন, তিনি রাজনৈতিক আশ্রয় নিতে বেলজিয়ামে আসেননি। তিনি এসেছেন, যাতে নিরাপদে এবং স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারেন সেজন্যে।

তিনি আরও বলেন, তিনি এবং তার সরকারের প্রতিনিধিদের ব্রাসেলসে আসার আরেকটা কারণ ইউরোপীয় ইউনিয়নকে যেন কাতালোনিয়া সংকটের ব্যাপারে ভালোভাবে অবহিত করা যায়।

মিস্টার পুজডেমন আরও বলেছেন, স্পেনের কেন্দ্রীয় সরকার যেরকম আগ্রাসী পদক্ষেপ নিচ্ছে তাতে অশান্তির আশংকা আছে। অথচ কাতালোনিয়ার জনগণ যেভাবে তাদের স্বাধীনতার আন্দোলন চালিয়েছে, তা ছিল পুরোপুরি শান্তিপূর্ণ।

এর আগে স্পেনের কেন্দ্রীয় সরকার হুমকি দিয়েছিল যে তারা রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগে কাতালোনিয়ার নেতাদের বিচার করবে। এই অপরাধের সর্বোচ্চ সাজা হচ্ছে তিরিশ বছরের কারাদন্ড।

মিস্টার পুজডেমন বলেছেন, তিনি বিচার এড়াতে দেশ ছাড়েননি। তবে ঠিক কতদিন তিনি বেলজিয়ামে থাকবেন, সেটা তিনি পরিস্কার করেননি।

এর আগে স্পেনের পররাষ্ট্র মন্ত্রী আলফোনসো ডাস্টিস বলেছিলেন, বেলজিয়াম সরকার যদি কার্লেস পুজডেমনকে রাজনৈতিক আশ্রয় দেয়, তাতে তিনি অবাক হবেন।

এদিকে স্পেনের ফেডারেল পুলিশ আজ কাতালোনিয়ার আঞ্চলিক পুলিশের দফতরে তল্লাশি চালিয়েছে। -বিবিসি