ব্রেকিং নিউজ

সকাল ১১:৩৭ ঢাকা, শুক্রবার  ২১শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

“সরকারের শেখানো কথা ছাড়া গণমাধ্যম এখন কথা বলতে পারে না”

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগকে উদ্দেশ করে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, তারা গণতন্ত্রের কথা বলে। যেখানে সরকারের শেখানো কথা ছাড়া গণমাধ্যম এখন কথা বলতে পারে না। সেখানে আবার কিসের গণতন্ত্র।
বুধবার দুপুরে রাজধানীর বনানী কার্যালয়ে বরগুনা জাতীয় পার্টি নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।
এরশাদ বলেন, গণমাধ্যম এখন কথা বলতে পারে না। অনেক টিভি বন্ধ করা হয়েছে। সেগুলো এখনো খুলে দেয়া হয়নি। সরকার যা চাইবে, তা তাদের বলতে হবে। জাপা ক্ষমতায় এলেই সাংবাদিকরা লিখতে পারবে।
এরশাদ বলেন, দেশে প্রকৃত গণতন্ত্র নেই। গণতন্ত্র থাকলে মানুষ স্বাধীনভাবে কেন কথা বলতে পারে না। মানুষের কথা বলার অধিকার, বাঁচার অধিকার, লেখার অধিকার কোনটাই আজ নেই। এ ধরণের গণতন্ত্র মানুষ চায় না, মানুষ প্রকৃত গণতন্ত্র চায়।
প্রতিদিন মানুষ হত্যার ঘটনা ঘটছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, প্রতিদিন মানুষ মরছে। কারা মারছে তা জনগণ জানলেও ভয়ে কেউ মুখ খুলে না। তিনি বলেন, হিন্দুরা ভোট দিযে আ্ওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় এনেছে। অথচ সরকারের লোকেরাই হিন্দুদের জমি দখল করছে।
প্রধানমন্ত্রীর এ বিশষ দূত বলেন, আমি যখন ক্ষমতায় ছিলাম তখন একটিও বিচারবহির্ভূত হত্যা হয়নি। আমি কোনো এলিট ফোর্স গঠন করিনি।
এরশাদ বলেন, দেশে এমন এক সরকার এসেছে যে বর্তমানে মায়ের গর্ভেও বাচ্চারা নিরাপদ নয়। এমনকি সংখ্যালঘুদের জমি দখল করে নেয়া হচ্ছে।
এসময় জাতীয় পার্টির মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুল হান্নান, সুনীল শুভ রায়,যুগ্ম মহাসচিব এ্যাড: রেজাউল ইসলাম ভুইয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।