আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী
আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ফাইল ফটো

সরকারের বিরুদ্ধে নগ্ন হস্তক্ষেপের অভিযোগ খসরু’র

সরকারের সমালোচনা করে ‘রাষ্ট্রের প্রতিটি অঙ্গে সরকার নগ্ন হস্তক্ষেপ করছে’ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির ব্যাপারে সরকার হস্তক্ষেপ করছে না বলাটাই লজ্জাজনক। তাদের এ বক্তব্য প্রমাণ করে আওয়ামী লীগই বেগম জিয়ার মুক্তির পথে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিচার বিভাগের ওপর বর্তমান সরকারের নগ্ন হস্তক্ষেপের কারণে বিএনপি চেয়ারপারসনের মুক্তি বিলম্বিত হচ্ছে অভিযোগ করে অবিলম্বে খালেদার মুক্তি দাবি করেন তিনি।

শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে নাগরিক অধিকার আন্দোলন ফোরাম আয়োজিত বিচার বিভাগে রাষ্ট্রীয় হস্তক্ষেপ বন্ধ এবং বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে প্রতিবাদী যুব সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

আয়োজক সংগঠনের উপদেষ্টা সাঈদ আহমেদ আসলামের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, সাবিরা নাজমুল, নিপুন রায় চৌধুরী, তাতী দলের যুগ্ম-আহ্বায়ক ড. কাজী মনিরুজ্জামান মনির প্রমুখ।

খসরু বলেন, সরকার বেগম খালেদা জিয়ার জামিনে হস্তক্ষেপ করছে বলেই এমপি-মন্ত্রীরা প্রতিনিয়ত নিজেদের প্রোটেক্ট করার জন্য বলে বেড়াচ্ছেন, তারা বেগম জিয়ার জামিনে হস্তক্ষেপ করছেন না। হস্তক্ষেপ যদি নাই করে থাকেন, তাহলে এমন প্রশ্ন আসে কেন?

তিনি বলেন, সরকার তাদের ক্ষমতা স্থায়ী করার লক্ষ্যে আদালতকে ব্যাবহার করে অন্যায়ভাবে বেগম জিয়াকে কারাগারে আটক রেখেছেন। এ দেশের মানুষের গণদাবি, বেগম জিয়ার মুক্তি এবং একটি সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে গণতন্ত্র ফিরে পাওয়া।

রাষ্ট্রের প্রতিটি অঙ্গে সরকার নগ্ন হস্তক্ষেপ করছে মন্তব্য করে খসরু বলেন, এমনকি সুশীল সমাজের ওপরও নগ্ন হস্তক্ষেপ করা হচ্ছে। সবাই কথা বলতে ভয় পাচ্ছে। কথা বললেই খুন-গুম ও হামলা-মামলায় জড়িয়ে নির্যাতন করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, এ সরকার জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়নি, এটা যেমন সকলের কাছে দিনের আলোর মতো পরিষ্কার, ঠিক তেমনি বেগম খালেদা জিয়াকে যে শুধুমাত্র রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে অন্যায়ভাবে কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে সেটাও সারা পৃথিবীর মানুষের কাছে পরিষ্কার।