ব্রেকিং নিউজ

রাত ১১:০৭ ঢাকা, শনিবার  ২২শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

সরকারের পদক্ষেপে জঙ্গিবাদ যথেষ্ট নিয়ন্ত্রণে : প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘সরকারের আন্তরিকতা এবং নানামুখী পদক্ষেপ নেয়ার ফলে জঙ্গিবাদ যথেষ্ট নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। জঙ্গিবাদ নির্মূলে সব কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।’ তিনি বলেন, জঙ্গিবাদ দমনে বাংলাদেশ ‘রোল মডেল’ হিসেবে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পাচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘জঙ্গিবাদ একটি বৈশ্বিক সমস্যা। দেশের সমৃদ্ধি ও উন্নয়নে জঙ্গিবাদ অন্যতম অন্তরায়। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর জঙ্গিবাদ দমনে জিরো টলারেন্স নীতিতে কার্যকর পদক্ষেপ ও পরিকল্পনা গ্রহণ করে সারা বিশ্বে বাংলাদেশ আজ রোল মডেল হিসেবে বিবেচিত।’

প্রধানমন্ত্রীর আজ তাঁর জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্বে সরকারি দলের সদস্য মমতাজ বেগমের এক প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারের ব্যাপক উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডের ফলে বাংলাদেশ আজ নিম্ন আয়ের দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশ হিসেবে লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের প্রায় কাছাকাছি চলে এসেছে। সমগ্র বিশ্ব বাংলাদেশকে পরবর্তী শীর্ষ এগারো অর্থনীতির দেশ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। ঠিক এসময় একটি অপশক্তি বাংলাদেশের উপর জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদের ছায়া বিস্তার করে চলেছে।

তিনি বলেন, ‘সরকারের আন্তরিকতা এবং নানামুখী পদক্ষেপ নেয়ার ফলে জঙ্গিবাদ যথেষ্ট নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। জঙ্গিবাদ নির্মূলে সব কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জঙ্গিবাদ দমনে গোয়েন্দা সংস্থা ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর দক্ষ সদস্যদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টার পাশাপাশি সর্বস্তরের জনগণ যেভাবে ঐক্যবদ্ধ হয়ে উগ্র সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে গণপ্রতিরোধ গড়ে তুলেছে তার নজির পৃথিবীতে দ্বিতীয়টি নেই।

তিনি বলেন, সময় এসেছে জঙ্গিবাদ-মৌলবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবার। সন্ত্রাসী হামলাকারীদের শেকড় খুঁজে বের করার ব্যাপারে সরকার যে দৃঢ়তা প্রদর্শন করে চলেছে তাতে দেশ ও বহির্বিশ্বে সরকারের ভাবমূর্তি বৃদ্ধি পেয়েছে। বিষয়টি সরকারের একটি অন্যতম সফলতা হিসেবে বিবেচনা করে।

শেখ হাসিনা বলেন, জঙ্গিবাদের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে এ পর্যন্ত ৬টি সংগঠনকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। জঙ্গিবাদ নির্মূলের লক্ষ্যে পুলিশ বাহিনীতে ডিএমপি’র অধীনে ‘কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম’ নামক পুলিশের নতুন একটি জঙ্গি দমন ইউনিটের কার্যক্রম চালু হয়েছে, যার কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। এছাড়া গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ধারাবাহিক অভিযান পরিচালনা করে জঙ্গিবাদের সঙ্গে জড়িত উল্লেখযোগ্য সংখ্যক ব্যক্তিকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবারুদসহ গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর এ অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।