Press "Enter" to skip to content

সম্পাদক সারওয়ারকে বানারীপাড়াবাসীর শ্রদ্ধা

সমকাল সম্পাদক সাংবাদিক গোলাম সারওয়ারকে বরিশালের বানারীপাড়ায় নিজ জন্মস্থানে নিয়ে গেলে বানারীপাড়ার সব শ্রেণিপেশার মানুষ শেষবারের মতো শ্রদ্ধা জানিয়েছেন।

বুধবার দুপুর ২টা ২২ মিনিটে তার কফিনবাহী হেলিকপ্টারটি ঢাকা থেকে নিজ জন্মস্থান বানারীপাড়ার জম্বদ্বীপ হেলিপ্যাডে অবতরণ করে।

পরে মরদেহ অ্যাম্বুলেন্সে করে কফিন নিয়ে সাংবাদিক গোলাম সারওয়ারের ১৯৭২ সালে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্বপালন করা বিদ্যাপীঠ বানারীপাড়া সরকারি মডেল ইউনিয়ন ইন্সটিটিউশন পাইলট মাঠের জানাজাস্থলে নিয়ে যাওয়া হয়।

এ সময় সেখানে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শরিফুল ইসলামের নেতৃত্বে গোলাম সারওয়ারের মরদেহকে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়।

পরে বিকাল ৩টায় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা পড়ান বন্দরবাজার উত্তরপার জামে মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা আমজহাদ হোসাইন।

জানাজা শেষে সাংবাদিক গোলাম সারওয়ারের কফিনে ফুল দিয়ে সর্বস্তরের মানুষ শ্রদ্ধা জানান।

এরপর বিকাল ৩টা ৩৭ মিনিটে সাংবাদিক গোলাম সারওয়ারের কফিনবাহী হেলিকপ্টার ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে আসে।

এদিকে আগামীকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় গোলাম সারওয়ারের মরদেহ নেয়া হবে তার কর্মস্থল সমকাল কার্যালয়ে।

সেখানে সহকর্মীদের শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে পার্শ্ববর্তী বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত হবে দ্বিতীয় জানাজা।

এরপর মরদেহ নিয়ে যাওয়া হবে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে। সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের ব্যবস্থাপনায় সকাল ১১টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত সর্বস্তরের জনগণ শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন।

শ্রদ্ধা জানানো শেষে মরদেহ নিয়ে যাওয়া হবে জাতীয় প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণে। সেখানে সংবাদিকরা তার মরদেহে শেষ শ্রদ্ধা জানাবেন।

বাদ জোহর অনুষ্ঠিত হবে আরেকটি জানাজা।

আগামীকাল বাদ আসর ঢাকার মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হবেন গোলাম সারওয়ার।

উল্লেখ্য, সোমবার রাত ৯টা ২৫ মিনিটে সিঙ্গাপুরের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান গোলাম সারওয়ার। মঙ্গলবার রাত ১০টা ৫০ মিনিটে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে তার মরদেহ দেশে আনা হয়।

Mission News Theme by Compete Themes.