ব্রেকিং নিউজ

রাত ১২:৩১ ঢাকা, শুক্রবার  ২১শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

সব পোশাক কারখানাতেই নানা ধরণের নিরাপত্তা ঝুঁকি পেয়েছে – একর্ড

শীর্ষ মিডিয়া ১৪ অক্টোবর ঃ পশ্চিমা পোশাক ব্রান্ডগুলোর জোট ‘একর্ড অন ফায়ার এন্ড বিল্ডিং সেফটি ইন বাংলাদেশ’ এর প্রধান নিরাপত্তা পরিদর্শক ব্রাড লোয়েন জানিয়েছেন, আমাদের দেশের প্রায় সব কারখানাতেই তারা নানা ধরণের নিরাপত্তা ঝুঁকি দেখতে পেয়েছেন। এর মধ্যে ছোট-খাট সমস্যা থেকে শুরু করে মারাত্মক ঝুঁকিও আছে। তিনি বলেন, একর্ডের টিম এখন  কারখানা মালিক, পোশাক ব্রান্ডগুলো এবং শ্রমিক নেতাদের সঙ্গে মিলে এসব সমস্যা দূর করার চেষ্টা করছে।

উল্লেখ্য ইউরোপীয় পোশাক ব্রান্ডগুলো বাংলাদেশের পোশাক কারখানাগুলোর নিরাপত্তা মান উন্নয়নের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয় রানা প্লাজা ট্র্র্যাজেডির পর। বাংলাদেশে রানা প্লাজা ধসে এগারোশোর বেশি শ্রমিক নিহত হয়েছিল,  ঐ ঘটনার পর বাংলাদেশের পোশাক শিল্পের নিরাপত্তা নিয়ে বিশ্ব জুড়ে উদ্বেগ তৈরি হয়। যার ফলে জি এস পি সুবিধা প্রত্যাহার করে যুক্তরাষ্ট্র ।

একর্ডের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, মোট এক হাজার একশো ছয়টি কারখানা তারা পরিদর্শন করে। এর মধ্যে চারশো কারখানার জন্য ইতোমধ্যে তারা একটি সংস্কার পরিকল্পনাও চূড়ান্ত করেছে।  এসব কারখানা পরিদর্শনের সময় তারা প্রায় আশি হাজার সমস্যা বা ত্রুটি-বিচ্যূতি দেখতে পেয়েছে। এর মধ্যে কারখানা ভবনের ওপর ওজনের চাপ কমানোর মতো ব্যবস্থাগুলো ইতোমধ্যে বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

একর্ডের পরিদর্শকরা দেখতে পেয়েছেন, অনেক কারখানা ভবনে ‘অগ্নিনিরোধক দরোজা এবং স্বয়ংক্রিয় সতর্কীকরণ ব্যবস্থা নেই। আগুন লাগার পর যেরকম অগ্নি প্রতিরোধী নির্গমণ পথ থাকা দরকার সেই ব্যবস্থাও নেই। অনেক কারখানা ভবনের কাঠামো আরও শক্ত করার প্রয়োজন । ১৭ টি ভবনের কাঠামো প্রত্যাশিত নিরাপত্তা মানের নীচে রয়েছে। এসব ভবনকে অনুপযোগী ঘোষণা করে সেগুলো খালি করার সুপারিশ করেছে । এ সংক্রান্ত রিপোর্ট তারা সরকারের কাছেও জমা দিয়েছে।