Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ৪:০৫ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ১৫ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

সন্দেহভাজন এক হামলাকারীকে খুঁজছে বেলজিয়াম পুলিশ

বেলজিয়ামে হামলার পর সন্দেহভাজন এক ব্যক্তিকে ধরতে ব্যাপক অভিযান চলছে।

ব্রাসেলস বিমান বন্দরের ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরার ফুটেজ দেখে সন্দেহভাজন সেই ব্যক্তির ছবি প্রকাশ করেছে পুলিশ।

জাভেনতেম বিমানবন্দরে জোড়া বিস্ফোরণের আগে বিমানবন্দরের ভেতরে আরো দুই সন্দেহভাজনের সাথে ওই ব্যক্তিকে হেঁটে যেতে দেখা গেছে।

বাকী দুজন আত্মঘাতী বিস্ফোরণে নিহত হয়েছে।

hamla4

চিত্র উইকিলিকসের

দেশটির ফেডারেল প্রসিকিউটর ফ্রেডরিক ফন লিউই বলছেন, এখন সন্দেহভাজন সেই ব্যক্তিকে ধরতে বেলজিয়াম জুড়ে অভিযান চলছে।

ঘটনার পর ব্রাসেলসে জারি করা হয়েছে সর্বোচ্চ সতর্কতা সংকেত; মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত সৈন্য।

ব্রাসেলসে দুই দফায় বিস্ফোরণে নিহত হয়েছে ৩০ জনেরও বেশি, আহত হয়েছে অন্তত ২৫০ জন।

ব্রাসেলসের প্রধান বিমান বন্দর ও মেট্রো রেলে বিস্ফোরণের পর পুরো শহর এখনো থমকে আছে; কার্যত বন্ধ হয়ে গেছে শহরের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা।

এই ঘটনায় তিন দিনের রাষ্ট্রীয় শোক পালন করছে বেলজিয়াম।

নিহতদের স্মরণে আজ (বুধবার) স্থানীয় সময় দুপুরে এক মিনিটের নীরবতা পালন করা হবে।

বেলজিয়ামের রাজা কিং ফিলিপ এই হামলাকে একটি কাপুরুষোচিত এবং ঘৃণ্য হামলা বলে বর্ণনা করেছেন।

দেশটির প্রধানমন্ত্রী চার্লস মিশেল বলেছেন, বেলজিয়ামকে আতঙ্কগ্রস্ত করা যাবে না।

হামলার প্রতিবাদে গতকাল (মঙ্গলবার) সন্ধ্যায় শত শত মানুষ মোমবাতি জ্বেলে হাতে ফুল নিয়ে ব্রাসেলসের প্রাচীন প্রাণকেন্দ্র প্লেস ডে লা বৌর্জ মোড়ে এসে জড়ো হয়।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের নেতারা বলেছেন, এই বোমা হামলা হলো মুক্ত ও গণতান্ত্রিক সমাজের উপরে হামলা।

অপরাধীকে ধরতে সকল রকম সহযোগিতার ঘোষণা দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। খবর বিবিসি বাংলার।