ব্রেকিং নিউজ

সন্ধ্যা ৭:৩৯ ঢাকা, মঙ্গলবার  ২৫শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

সন্ত্রাসীদের সাথে মিটমাট নয়

Like & Share করে অন্যকে জানার সুযোগ দিতে পারেন। দ্রুত সংবাদ পেতে sheershamedia.com এর Page এ Like দিয়ে অ্যাক্টিভ থাকতে পারেন।

 

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, পাকিস্তানি রাজাকারদের সঙ্গে যেমন মিটমাট হয়নি, তেমনি আগুন-সন্ত্রাসীদের সাথেও কোন মিটমাট নয়। তাদের চূড়ান্ত পরাজয় ও আত্মসমর্পণের কোন বিকল্প নেই।
মন্ত্রী আজ জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশের সাম্যবাদী দল (এমএল) আয়োজিত ‘ভাষা আন্দোলন ও কমরেড মোহাম্মদ তোয়াহা’র ভূমিকা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় একথা বলেন।
তথ্যমন্ত্রী অভিযোগ করেন, ‘বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে বিএনপি-জামায়াত জোট আগুন দিয়ে পুড়িয়ে সাধারণ মানুষকে হত্যা করছে। তিনি (বেগম খালেদা জিয়া) সিংহাসনের লোভে নাশকতার মাধ্যমে দেশকে জঙ্গিবাদীদের কাছে ইজারা দিতে চান ।
বাংলাদেশের জনগণ কখনও তালেবানি-জঙ্গিবাদি ষড়যন্ত্রের নীল নকশাকে এদেশে বাস্তবায়িত হতে দেবে না উল্লেখ করে তিনি দৃপ্ত কন্ঠে বলেন, জঙ্গিবাদি, সন্ত্রাসী ও নাশকতাকারীদের কাছে দেশ ও জনগণ কখনও মাথা নত করতে পারে না। বরং সকল ষড়যন্ত্রকে ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিহত করতে জনগণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বদ্ধপরিকর রয়েছে।
বাংলাদেশের সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সাবেক শিল্পমন্ত্রী দিলীপ বড়–য়ার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন ভাষা সংগ্রামী লেখক ও বুদ্ধিজীবী আহমদ রফিক এবং গবেষক ও কলামিষ্ট সৈয়দ আবুল মকসুদ।
হাসানুল হক ইনু তাঁর বক্তৃতায় পেট্রল বোমা মেরে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে মানুষ হত্যাকারী আগুন-সন্ত্রাসীদের উগ্রপন্থী তালেবান ও মধ্যপ্রাচ্যের জঙ্গিদের মত বর্বর ও দানব বলে মন্তব্য করেন। তিনি নাশকতা বন্ধের আগে যেকোন প্রকার সংলাপ অনুষ্ঠানের সম্ভাবনাকেও নাকচ করে দেন।
তিনি বলেন, ‘দানবের সাথে মানবের সংলাপ হয় না। নাশকতা বন্ধের আগে কোন সংলাপ নয় এবং বিচ্ছিন্ন একটি নির্বাচনের জন্য কোন সংলাপ নয়। সকল সময় সংলাপের লক্ষ্য হবে স্থায়ী সমাধান।’
তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আগুন-সন্ত্রাসী ও নাশকতাকারীদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিরোধ গড়ে তোলার মাধ্যমেই কেবল অসাধারণ মেধাবী, প্রগতিশীল ছাত্রনেতা, ভাষাসৈনিক এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ তোয়াহা’র প্রতি সত্যিকারের শ্রদ্ধা জানানো সম্ভব হবে।’