ব্রেকিং নিউজ

রাত ১০:৪০ ঢাকা, শনিবার  ২২শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

সন্ত্রাসীদের জন্য সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষার স্বপ্ন অর্জিত হয়নি

Like & Share করে অন্যকে জানার সুযোগ দিতে পারেন। দ্রুত সংবাদ পেতে sheershamedia.com এর Page এ Like দিয়ে অ্যাক্টিভ থাকতে পারেন।

 

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, জঙ্গিবাদী আগুন সন্ত্রাসী ও সাম্প্রদায়িক শক্তির জন্য সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষার স্বপ্ন আজও অর্জিত হয়নি ।
তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে ’৭১-এর মহাযুদ্ধে আমরা লড়াই করেছি এদেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষার জন্য। সেই সাধের স্বপ্ন সমাজ আমরা এখনো অর্জন করতে পারিনি। এটা সম্ভব হয়নি জঙ্গিবাদী, আগুন সন্ত্রাসী ও সাম্প্রদায়িক শক্তির জন্য।
তথ্যমন্ত্রী আজ বিকেলে রাজধানীর বাসাবো ধর্মরাজিক বৌদ্ধ মহাবিহারে কৃপাশরণ মহাস্থবিরের ১৫০তম জন্মজয়ন্তী জাতীয় উদযাপন পরিষদ আয়োজিত ‘কৃপাশরণ মহাস্থবির : জীবন ও কর্ম’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
সংঘরাজ ড. ধর্মসেন মহাস্থবিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, পশ্চিমবঙ্গের শ্রী হেমেন্দু বিকাশ চৌধুরী, ডিভাইন ম্যাসেঞ্জার মিসেস ভাসুলা রাইডেন। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন, স্বপন বড়–য়া চৌধুরী, বাংলাদেশ বুদ্ধিস্ট ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অশোক বড়–য়া, অধ্যাপক ড. দিলীপ কুমার বড়–য়া ও বাংলাদেশ বুদ্ধিস্ট ফেডারেশনের নির্বাহী সভাপতি নেত্রসেন বড়–য়া। প্রবন্ধ পাঠ করেন, বাংলাদেশ বৌদ্ধ কৃষ্টি প্রচার সংঘের যুগ্ম মহাসচিব ড. বিকিরণ প্রসাদ বড়–য়া।
’৭১-এর বর্বর দানবরা বাংলাদেশের ঘরে প্রবেশ করেছে, তাদের বিতাড়িত করতে হবে উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘যার নিজের ধর্মের উপর বিশ্বাস আছে, সে কখনো অন্যের ধর্মের উপর হামলা করতে পারে না। আমি নিজেও ধর্মে বিশ্বাসী। মুহাম্মদ (সাঃ) বলেছেন, তোমরা অন্যের ধর্মকে নিয়ে গালি দিও না, যুদ্ধে কোনো উপাসনালয়ে হামলা করো না। নারী, শিশু, বৃদ্ধকে হত্যা করো না, ফসলের ক্ষেত নষ্ট করো না। কিন্তু দেখা যায়, ’৭১-এর মহাযুদ্ধে পাকিস্তানি ও তাদের দোসর রাজাকাররা ভিন্নধর্মীদের হত্যা করেছে, উপাসনালয় ধ্বংস করেছে, নারী-শিশুদের হত্যা করেছে, নির্যাতন চালিয়েছে। তারা বর্বর জানোয়ার, তারা দানব।’
তথ্যমন্ত্রী কতিপয় বুদ্ধিজীবীদের উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘ক্ষমতা বুঝ, পোড়া মানুষের যন্ত্রণা বুঝ না? ক্ষমতা বুঝ, নির্যাতিত মানুষের আর্তনাদ শুনতে পাও না? এই আগুন সন্ত্রাসীদের নেত্রী বেগম জিয়া ও তার ছেলে তারেক। এদেরকে বাংলাদেশের ঘর থেকে বিতাড়িত করতে হবে। তবেই আমাদের ধর্ম ও উপাসনালয় রক্ষা পাবে।
উদ্বোধনী বক্তব্যে বাংলাদেশ বৌদ্ধ কৃষ্টি প্রচার সংঘের সভাপতি সংঘনায়ক শুদ্ধানন্দ মহাথের বলেন, হাজার বছর ধরে আমরা আমাদের ধর্মীয় কৃষ্টি কালচার অনুসরণ করে আসছি। আমরা সত্যের উপর প্রতিষ্ঠিত। কোনো দুর্যোগ আমাদের এই এগিয়ে চলা রোধ করতে পারবে না।