ব্রেকিং নিউজ

সন্ধ্যা ৬:২৫ ঢাকা, বুধবার  ১৯শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

আছাদুজ্জামান মিয়া
ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া, ফাইল ফটো

“সকল বাড়ির মালিক-ভাড়াটিয়াদের তথ্য ১৫ মার্চের মধ্যে থানায় জমা দিতে হবে”

ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া আগামী ১৫ মার্চের মধ্যে রাজধানীর বাড়ির মালিক, ভাড়াটেসহ নগরবাসীর তথ্য সরবরাহ করা ফরমে পূরণ করে থানায় জমা দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

সোমবার দুপুরে মিন্টো রোডে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে এক ব্রিফিংয়ে তিনি এ নির্দেশ দেন।

ডিএমপি কমিশনার জানান, জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ দমনে এসব তথ্য হালনাগাদ করে একটি ডেটাবেজে রাখা হবে। অন্য কোনো কাজে তা ব্যবহার করা হবে না।

এ সময় নিরাপদ ঢাকা গড়তে নগরবাসীর সহায়তাও চান তিনি।

মো. আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, রাজধানীর সব বাসায় ফরম পাঠানো হয়েছে। যারা এখনো ফরম পাননি, তারা থানায় যোগাযোগ করে ফরম সংগ্রহ করবেন।

তিনি বলেন, কোনো বাড়িওয়ালা যদি ভাড়াটিয়াদের তথ্য জমা না দেন এবং এ সময়ের মধ্যে কোনো দুর্ঘটনা ঘটে, তবে বাড়িওয়ালাকে দোষী সাব্যস্ত করা হবে।

বিট পুলিশিংয়ের ব্যাপারে আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ‘কমিউনিটি পুলিশিং এবং বিট পুলিশিং একই বিষয়। কমিউনিটি পুলিশকে আধুনিকায়ন করে বিট পুলিশ করা হয়েছে।’

ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘মানুষ পুলিশকে বিশ্বাস করতে চায় না। কারণ মানুষের মধ্যে পুলিশভীতি আছে। সাধারণ মানুষ এবং পুলিশের মধ্যে দূরত্ব কমাতেই বিট পুলিশিং চালু করা হয়েছে। রাজধানীর ৪৯টি থানার প্রতিটিতে ৩ থেকে ৯টি করে মোট ২৮৭ টি বিট চালু করা হয়েছে।’

বিট পুলিশিং চালু হলে সমাজে মাদক, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ, জঙ্গিবাদ নির্মূল হবে জানিয়ে তিনি বলেন, বিট পুলিশিংয়ের মাধ্যমে অপরাধীদের সম্পর্কে আমরা সহজেই তথ্য সংগ্রহ করতে পারব। প্রতিটি বাড়ির ড্রাইভার, গৃহকর্মী, কেয়ারটেকারদের সম্পর্কেও আমাদের কাছে তথ্য থাকবে।

বিট পুলিশিং যদি আগে থেকেই চালু থাকতো, রাজধানীর বিভিন্নস্থানে জঙ্গিরা আস্তানা গাড়তে পারত না বলেও জানান ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া।