ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ১২:৫৬ ঢাকা, শনিবার  ২২শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

সংসদ অধিবেশন
জাতীয় সংসদ ভবন

সংসদ অধিবেশন বসছে ২৪ এপ্রিল

দশম জাতীয় সংসদের ১০ম অধিবেশন আগামী ২৪ এপ্রিল রবিবার বিকাল ৫টায় শুরু হবে। রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ সংবিধানের ৭২ অনুচ্ছেদের (১) দফায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এই অধিবেশন আহবান করেছেন।
বুধবার সংসদ সচিবালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়। সংবিধানে উল্লেখিত ৬০ দিনের বাধ্যবাধকতার জন্যই এই অধিবেশন ডাকা হয়েছে। সংবিধান অনুযায়ি এক অধিবেশন সমাপ্ত হওয়ার ৬০ দিনের মধ্যে আরেকটি অধিবেশনে বসতে হবে। সংসদ সচিবালয় থেকে জানানো হয় এই অধিবেশন সংক্ষিপ্ত হতে পারে। অবশ্য ২৪ এপ্রিল বিকালে অনুষ্ঠিতব্য সংসদ কার্য-উপদেষ্টা কমিটির সভায় আসন্ন দশম অধিবেশনের কার্যক্রম ও মেয়াদ নির্ধারন করা হবে। কমিটির সভাপতি স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী ওই সভায় সভাপত্বি করবেন।
এর আগে গত ২৯ ফেব্রুয়ারি দশম জাতীয় সংসদের নবম অধিবেশন শেষ হয়। গত ২০ জানুয়ারি ওই অধিবেশন শুরু দিন বছরের প্রথম অধিবেশন হিসাবে সংবিধান অনুযায়ি রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ সংসদে ভাষণ দেন। পরদিন ভাষণের ওপর চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ ধন্যবাদ প্রস্তাব উত্থাপন করলে হুইপ ইকবালুর রহিম তা সমর্থন করেন।
মোট ২৭ কার্যদিবসের নবম অধিবেশনে ৯টি সরকারি বিল পাস হয়। এছাড়া ওই অধিবেশনে আইন প্রণয়ন সম্পর্কিত কাজ সম্পাদনের পাশাপাশি কার্যপ্রণালী বিধির ৭১ বিধিতে ২৮৫টি নোটিশের মধ্যে ১৫টি নোটিশ গৃহীত হয় এবং গৃহীত নোটিশের মধ্যে ৩টি সংসদে আলোচিত হয়। ৭১(ক) বিধিতে দুই মিনিটের আলোচিত নোটিশের সংখ্যা ছিল ৬০টি।
এছাড়া নবম অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রীর উত্তর দানের জন্য সর্বমোট ৩শ’টি প্রশ্ন পাওয়া যায়। এর মধ্যে তিনি ৮৯টি প্রশ্নের উত্তর দেন। মন্ত্রীদের উত্তর দানের জন্য ৪ হাজার ৯২২টি প্রশ্ন পাওয়া যায়। তার মধ্যে ৩ হাজার ৪৪৪টির উত্তর দেয়া হয়।