ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৩:৫৮ ঢাকা, সোমবার  ২৪শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ব্যক্তিদের দ্রুত গ্রেফতার করতে হবে

Like & Share করে অন্যকে জানার সুযোগ দিতে পারেন। দ্রুত সংবাদ পেতে sheershamedia.com এর Page এ Like দিয়ে অ্যাক্টিভ থাকতে পারেন।

 

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ এমপি বিশিষ্ট নাগরিক সমাজের নামে বিএনপি-জামায়াতের দোসর হিসেবে যারা মানুষ হত্যা করে অগণতান্ত্রিক সরকার প্রতিষ্ঠার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত- তাদের দ্রুত গ্রেফতারের জন্য সরকারের প্রতি দাবী জানিয়েছেন।
তিনি আজ সকালে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের উদ্যোগে ‘বিএনপি-জামায়াতের হরতাল ও অবরোধের নামে নিরীহ মানুষ পুড়িয়ে হত্যা এবং নাশকতা’র প্রতিবাদে আয়োজিত মানববন্ধন ও সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুন সরকার রানার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন খাদ্যমন্ত্রী এবং ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট কামরুল ইসলাম।
সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট শামসুল হক এম পি, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক এডভোকেট বলরাম পোদ্দার প্রমুখ।
ড. হাছান মাহমুদ বলেন, শুধু নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না নয়, বিএনপি-জামায়াতের দোসর হিসেবে যারা মানুষ হত্যা করে অগণতান্ত্রিক সরকারকে ক্ষমতায় আনার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত তাদের সকলকে দ্রুত গ্রেফতার করতে হবে।
তিনি বলেন, মাহমুদুর রহমান মান্না এবং বিএনপি নেতা সাদেক হোসেন খোকার কথোপকথনই প্রমাণ করে বিশিষ্ট নাগরিক সমাজের নামে তারা লাশের ওপর পা রেখে ক্ষমতায় যেতে চায়।
তিনি আরো বলেন, ‘ বিএনপি-জামায়াতের মানুষ হত্যার রাজনীতিকে উৎসাহিত করে অগণতান্ত্রিক উপায়ে ক্ষমতা দখলের ষড়যন্ত্রের দোসর হিসেবে তারা কাজ করছেন।’
এডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেন, লাশের রাজনীতির মাধ্যমে অগণতান্ত্রিক উপায়ে ক্ষমতায় যাওয়ার ষড়যন্ত্র দেশে আর কখনো সফল হবে না।
সন্ত্রাস ও গণতন্ত্র এক সাথে চলতে পারে না- এ কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, জঙ্গিবাদী নাশকতাকারীদের নির্মূল করাই এখন সরকারের সবচেয়ে বড় কাজ। সরকার তার কাজ করছে এবং সরকারের সমর্থনে দেশের মানুষও সোচ্চার হয়েছে।
কামরুল আরো বলেন, তাদের আর কোন ধরনের বিন্দুমাত্র ছাড় দেযা হবে না। তাদের বিচারের মুখোমুখি করা হবে।