Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ২:১৫ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ১৫ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বেগম খালেদা জিয়া

‘শেখ মুজিবুর রহমান পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হতে চেয়েছিলেন’- খালেদা জিয়া

বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, ‘শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতার ঘোষণা দিতে চাননি, মুক্তিযুদ্ধ চাননি, তিনি পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হতে চেয়েছিলেন’।

গুলশানে নিজ রাজনৈতিক কার্যালয়ে শনিবার ২১মে রাত পৌনে ৮টার দিকে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।

আওয়ামী লীগ নয় বিএনপিই মুক্তিযুদ্ধের দল দাবি করে তিনি বলেন, ‘সুযোগ থাকার পরও শেখ মুজিব স্বাধীনতার ঘোষণা দেননি। স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছিলেন জিয়াউর রহমান। তিনি (শেখ মুজিব) যুদ্ধও করেন নাই, পাইপটাইপ নিয়ে পাকিস্তানে চলে গিয়েছিলেন। আওয়ামী লীগ সীমান্ত পারি দিয়েছে আর স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়ে যুদ্ধ করেছেন জিয়াউর রহমান। কিন্তু যুদ্ধ না করে তারা এখন মুক্তিযোদ্ধা। তিনি (শেখ মুজিব) সব সময় পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হতে চেয়েছেন। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ চাননি। বাংলাদেশের মানুষ স্বাধীনতা যুদ্ধ করেছেন এবং দেশ স্বাধীন করেছেন।

আওয়ামী লীগের সমালোচনা করে বেগম খালেদা জিয়া বলেন, আওয়ামী লীগ মুখে ধর্ম নিরপক্ষেতার কথা বললেও বাস্তব চিত্রটা ভিন্ন। তারা ধর্ম নিরপক্ষেতা বিশ্বাস করেনা। তাই যদি হতো তাহলে সকল ধর্মের মানুষকে হত্যা করতো না। তাদের মনে যে কি আছে তা জানা কঠিন। বিএনপি সকল ধর্মের স্বাধীনতায় বিশ্বাসী। কিন্তু বর্তমানে দেশে অশান্ত পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। আমরা চাই শান্তি, ঐক্য ও প্রতিবেশীর সঙ্গে সুসম্পর্ক। কারণ সমস্যার সমাধান মারামারিতে নয়, সমাধান করতে হয় আলাপ-আলোচনায়।

প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সমালোচনা করে বেগম খালেদা জিয়া বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু করার জন্য তিনি ট্যাংকের কথা বলেছেন। কিন্তু ট্যাংকতো চালায় সেনাবাহিনী। ‘সিইসি একটা অপদার্থ।’মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘যখন পরিস্থিতি খারাপ দেখেন তখন তিনি (সিইসি) মুখ খোলেন আর মাঝামাঝি কথা বলেন।

তিনি বলেন, দখল ও হত্যা আওয়ামী শাসকদলের জন্য নতুন কিছু নয়। স্বাধীনতার পর রাষ্ট্রক্ষমতায় থেকেও তারা দখল,হত্যা ও নির্যাতন চালিয়েছে। বর্তমানে দেশে কোনো ধর্মের মানুষের নিরাপত্তা নেই। এখন পর্যান্ত যত লোক হত্যা হয়েছে তার হত্যাকারীদের কেউ কি গ্রেফতার হয়েছে ? গ্রেফতার করা হয়নি কারণ এই সকল অপরাধীরা তাদেরই দলীয় লোক।

khaleda43

এসময় আওয়ামী লীগের মধ্যে যারা দেশপ্রেমিক আছেন তাদের নিয়ে ঐক্যবদ্ধ হয়ে দেশ গঠনের কথাও বলেন তিনি।

এছাড়া, বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বৌদ্ধ মন্দিরের ভিক্ষু মংশৈ উ চাককে হত্যার ঘটনায় বিএনপির প্রতিনিধি দল পাঠানো হবে বলে জানান বেগম খালেদা জিয়া।

শুভেচ্ছা বিনিময়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সহ-ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক এ্যাডভোকেট দীপেন দেওয়ান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. সুকোমল বড়ুয়া বক্তব্য রাখেন। এছাড়াও বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্ঠা রুহুল আলম চৌধুরী, কেন্দ্রীয় নেতা খন্দকার গোলাম আকবর, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাসুদ আহমেদ তালুকদার, সু মঙ্গল ভিক্ষু, সাচিং ভ্র জেরী, দয়া নন্দ ভিক্ষু, শান্তি রক্ষিত থের, সুশীল বড়ুয়া, চন্দ্রগুপ্ত বড়ুয়া, প্রবীণ চন্দ্র চাকমা, সনত তালুকদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

bnp49 bnp50