ব্রেকিং নিউজ

সকাল ১০:১৮ ঢাকা, শুক্রবার  ২১শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
ফাইল ফটো

‘শীর্ষ জঙ্গি নিহতের ঘটনায় দেশবাসীর আত্মবিশ্বাস বেড়েছে’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ নারায়ণগঞ্জে হলি আর্টিজানের শীর্ষ জঙ্গিসহ তিন জঙ্গি নিহত হওয়ার বিষয়ে বলেছেন, এই ঘটনায় দেশবাসীর আত্মবিশ্বাস আরো বেড়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘হলি আর্টিজানে মূলহোতা যে জঙ্গি ছিল সে খতম হয়ে গেছে। এর মাধ্যমেই দেশ আরেকটা অভিশাপ মুক্ত হল।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ বিকেলে তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবনে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে এ কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, পরিবেশ ও বন মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু, বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিবগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র নিয়ে দেশের বিভিন্ন মহলের অবস্থান ও বক্তব্যের প্রেক্ষিতে সরকারের অবস্থান ব্যাখ্যার জন্য মূলত, এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন হলেও সাংবাদিকদের প্রশ্নের প্রেক্ষিতে আজ ভোরে নারায়ণগঞ্জে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনী পরিচালিত জঙ্গিবিরোধী ‘অপারেশন হিট স্ট্রং ২৭’ এর বিষয়েও প্রধানমন্ত্রী কথা বলেন।

আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনীর আজকের অভিযানে গুলশাল হলি আর্টিজান বেকারিতে এবং শোলাকিয়ায় ঈদ জামাতে হামলা প্রচষ্টার মূল পরিকল্পনাকারি হিসেবে অভিযুক্ত (মাস্টার মাইন্ড) কানাডা প্রবাসী তামিম চৌধুরীসহ তিন জঙ্গি নিহত হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জঙ্গি-সন্ত্রাসি দমনের বিষয়ে আমি সবার আগে ধন্যবাদ জানাই আমাদের গোয়েন্দা সংস্থা এবং পুলিশ বাহিনীকে, আইন-শৃংখলা রক্ষাকারি সংস্থাকে। কারণ, আমরা বেশ কিছুদিন যাবতই খুঁজে যাচ্ছিলাম মূল হোতাকে এবং তাকে আমাদের গোয়েন্দা সংস্থা খুঁজে বের করেছে।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘সেখানে তারা পুলিশের ওপর আক্রমণ করেছে এবং মূল যে জঙ্গি ছিল হলি অর্টিজানে সে খতম হয়ে গেছে। এর মাধ্যমেই দেশ আরেকটা অভিশাপ মুক্ত হল।’

তিনি বলেন, আজকে এই প্রেস কনফারেন্সের মাধ্যমে আমি দেশবাসীকে বলব, আমি আপনাদের ধন্যবাদ জানাই। কারণ আজকে একটা গণসচেতনতার সৃষ্টি হয়েছে এই সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে। এই সচেতনটাই সব থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। বেশি দরকার। আমরা যদি এভাবে সচেতনতা সৃষ্টির মাধ্যমে সবাই মিলে এই সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ বিরোধী কার্যক্রম অব্যাহত রাখি তাহলে অবশ্যই আমরা এদেশ থেকে জঙ্গিবাদ দূর করতে সমর্থ হব।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, তবে আমার এটাও প্রস্তাব যে, এদের মেরে ফেলা হল কেন? বাঁচিয়ে রাখা হল না কেন? বাঁচিয়ে রাখলে তথ্য পাওয়া যেত-এই তথ্য যেন আমরা কেউ না দেই। তিনি এ সময় বলেন এদের জন্যও দেখা যাবে মায়াকান্না হচ্ছে- তাহলে প্রশ্ন ওঠে তাদের যোগসূত্রটা কি?

এ সময় ইংল্যান্ড ক্রিকেট টিমের বাংলাদেশে আগমন এবং মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী জন কেরির আগমনকে দেশের জন্য সুখবর বলেও প্রধানমন্ত্রী উল্লেখ করেন।

এ সম্পর্কিত এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিদেশি মেহমানরা আসছেন, ক্রিকেট টিম আসছে, এটা অবশ্যই একটা সুখবর।

আমি মনে করি, আজকে জঙ্গিদের বিরুদ্ধে সরকারের যে পদক্ষেপ হল, তাদের খতম করা হল, এতে করে তাঁদের (বিদেশি মেহমানদের) আরো কনফিডেন্স বাড়বে। বাংলাদেশ যেটা বলে সেটা করে এবং বাংলাদেশের জঙ্গিবাদ বিরোধী ভূমিকা তারা কঠিনভাবেই পালন করছে।’

ইউএস স্টেট ডিপার্টমেন্ট এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি জানায়, ‘যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি ২৯ আগস্ট একদিনের সফরে ঢাকা আসবেন।’