শীর্ষ মিডিয়া

ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ১২:৩৭ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ১৩ই ডিসেম্বর ২০১৮ ইং

মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া
দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীর বিক্রম

শীতার্তদের ত্রাণ মনিটরিং-এ ‘কন্ট্রোল রুম’ খুলেছে সরকার

চলমান শৈত্যপ্রবাহে শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল ও শুকনো খাবার পাঠিয়ে সেগুলো সঠিকভাবে বিতরণ নিশ্চিত করতে মন্ত্রণালয়, অধিদফতর এবং জেলায় জেলায় কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে।

আজ সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীর বিক্রম।

শৈত্যপ্রবাহে শীতার্ত মানুষের কষ্ট লাঘবে সরকারের বিভিন্ন উদ্যোগ সম্পর্কে জানাতে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

এ ছাড়া সরকারের বরাদ্দকৃত কম্বল এবং শুকনো খাবার সুষ্ঠুভাবে বন্টনের জন্য ২০ জেলায় ২০ জন কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দিয়েছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়।

মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া জানান, মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ১০ লাখ ১১ হজার ৯০০ এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে ১৮ লাখসহ সর্বমোট ২৮ লাখ ১০ হাজার কম্বল বিতরণ করা হয়েছে। এ ছাড়া শীতার্ত মানুষের জন্য ৮০ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার সরবরাহ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশ দিয়েছেন, শৈত্যপ্রবাহে শীতবস্ত্রের জন্য কেউ যেন কষ্ট না পায়। সে জন্য প্রধানমন্ত্রী এবং মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে আগাম প্রস্তুতি ছিল। শৈত্যপ্রবাহ শুরু সঙ্গে সঙ্গে সোমবার ২০ জেলায়, যেখানে সবচেয়ে বেশি মানুষ শীতে কাতর সেখানে তাৎক্ষণিক এক লাখ কম্বল এবং ৮০ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়া সংসদ সদস্য এবং বিভিন্ন প্রতষ্ঠানের চাহিদা অনুযায়ী ১২ হাজার ৯০০ কম্বল বিতরণ করা হয়েছে বলেও জানান ত্রাণমন্ত্রী।

সংবাদ সম্মেলনে মায়া জানান, ২০ জেলায় ২০ জন কর্মকর্তা চলে গেছেন। শীত না নামা পর্যন্ত জেলা প্রশাসক এবং স্থানীয় নেতাদের সঙ্গে পরামর্শ করবেন, যে কম্বল পাঠিয়েছি সেগুলো সুষ্ঠু বণ্টন করবেন এবং আরো প্রয়োজন হলে পাঠানো হবে।

তিনি বলেন, আশ্বস্ত করতে চাই, কম্বল, শুকনো খাবার, টাকা মজুত আছে। শীতে কোনো মানুষ কষ্ট পাবে না। সে জন্য যা যা করা দরকার, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে আমরা তা করবো।

মন্ত্রী বলেন, মন্ত্রণালয় ও অধিদফতর এবং জেলায় জেলায় কন্ট্রোল রুম ২৪ ঘণ্টা খোলা থাকবে। যে জেলা থেকে যে ধরনের খবর আসবে আমরা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অক্ষরে অক্ষরে পালন করবো। মানুষ যেনো শীতে কষ্ট না পায় সে জন্য যা যা করা দরকার সরকার ও মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে করবো।

ত্রাণমন্ত্রী জানান, মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ফয়জুর রহমানকে ফোকাল পয়েন্ট করে কন্ট্রোল রুম (০১৭২৭২১২১৬৯) খোলা হয়েছে। কন্ট্রোল রুমের মূল উদ্দেশ্য হলো ২৪ ঘণ্টা সারাদেশের খোঁজ-খবর রাখা।

ত্রাণ সচিব শাহ কামাল জানান, ডিজি অফিসে আরেকটি কন্ট্রোল রুম (০১৭১২০০০৬৩) খোলা হয়েছে। এ ছাড়া জেলায় জেলায় কন্ট্রোল রুম কাজ করবে।