Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ১:২২ ঢাকা, সোমবার  ১৯শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

মুজিবুল হক
শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মোঃ মুজিবুল হক

‘শীঘ্রই গার্মেন্টস শিল্পকে ত্রুটিমুক্ত ঘোষণা’

রাজধানীর একটি হোটেলে আজ দু’দিনব্যাপী বাংলাদেশ টেক্সটাইল সেমিনার শুরু হয়েছে। শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মোঃ মুজিবুল হক এই সেমিনারের উদ্বোধন করেন। এ সময় শ্রম প্রতিমন্ত্রী বলেন, অধিকাংশ গার্মেন্টস কারখানাকেই ঝুঁকিমুক্ত করা হয়েছে। ঝুঁকি গুলোকে দ্রুত সরানোর তাগিদ দেয়া হচ্ছে। শীঘ্রই গার্মেন্টস শিল্পকে ত্রুটিমুক্ত ঘোষণা করা যাবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, গার্মেন্টস শিল্পে বাংলাদেশ এখন বিশ্বের শীর্ষ গ্রীন ফ্যাক্টরির দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম। ২০২১ সাল নাগাদ বছরে ৫০ বিলিয়ন ডলার গার্মেন্টস রফতানি আয় আমাদের লক্ষ্য। গত বছর এখাতে আমাদের রফতানি আয় ২৮ বিলিয়ন ডলার। তিনি বলেন, মোট রফতানি আয়ের ৭৫ শতাংশ আসে কেবল গার্মেন্ট রপ্তানী থেকে।

তিনি বলেন, গার্মেন্টস শিল্পের উন্নয়নে সরকার নিরলসভাবে কাজ করছে। উৎপাদন বৃদ্ধিতে নিরাপদ কর্মপরিবেশ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারখানার কর্মপরিবেশ নিরপেক্ষ রাখতে প্রতিটি কারখানাকে পরিদর্শনের আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে। সরকার, একর্ড এবং এলাইন্সে মিলে সকল গার্মেন্টস কারকানার ঝুঁকি নিরুপন এবং সেগুলো সমাধানের জন্য ব্যবস্থা গ্রহণে মালিকদের পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন,অধিকাংশ গার্মেন্টস কারখানাকেই ঝুঁকিমুক্ত করা হয়েছে। ঝুঁকি গুলোকে দ্রুত সরানোর তাগিদ দেয়া হচ্ছে। শীঘ্রই গার্মেন্টস শিল্পকে ত্রুটিমুক্ত ঘোষণা করা যাবে। তিনি বলেন, নিরাপদ কর্মপরিবেশে উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে ফলে রপ্তানী আয় বাড়বে। দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে গার্মেন্টস খাত আরো বেশি অবদান রাখতে পারবে।

মুজিবুল হক আরো বলেন,বাংলাদেশই একমাত্র দেশ যেখানে সরকার আইন করে গার্মেন্টস শ্রমিকদের কল্যাণে কেন্দ্রীয় তহবিল গঠন করেছে। গার্মেন্টসের মোট রফতানি আয়ের ০.০৩ শতাংশ সরাসরি কেন্দ্রীয় তহবিলে জমা হচ্ছে। ইতোমধ্যে এ তহবিল থেকে গার্মেন্টস শ্রমিকদের আর্থিক সহায়তা কার্যক্রম চালু হয়েছে। টেক্সটাইল শিল্পের উন্নয়নে এ ধরনের সেমিনার সহায়ক ভূমিকা পালন করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যাক্ত করেন।

চীনের সাংহাই ইসিডি ইন্টারন্যাশনাল এ সেমিনারের আয়োজন করেছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বানিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এম. আব্দুর রউফ বাংলাদেশ টেক্সটাইল শিল্পে সরকারের সহযোগিতামূলক নীতিমালার ওপর এবং সিপিডির অতিরিক্ত গবেষনা পরিচালক ড. খোন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম টেক্সটাইল শিল্পের বর্তমান অবস্থা, সমস্যা ও সম্ভাবনার ওপর দু’টি পৃথক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।