Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৯:১৯ ঢাকা, রবিবার  ১৮ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

“শিশু ও নারী নির্যাতন ঘটনায় ছাড় নেই”

জাসদ সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানু হক ইনু বলেছেন, শিশু ও নারী নির্যাতন বিষয়ে সরকারের সুস্পষ্ট নির্দেশ অনুযায়ী এমন ঘটনায় জড়িত কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।
সাম্প্রতিক সময়ে সারাদেশে শিশু নির্যাতনের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে তিনি বলেন, এ বিষয়ে প্রশাসন এবং সরকার উদ্বিগ্ন। নির্যাতনের ঘটনা জানার সঙ্গে সঙ্গে প্রশাসন কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করছে। শিশু নির্যাতনের ঘটনায় ২৪ থেকে ৭২ ঘন্টার মধ্যে দোষীদের গ্রেফতার করা হয়েছে।
শুক্রবার সকালে কুষ্টিয়া ভেড়ামারা উপজেলা বেগম হালিমা একাডেমী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ দিবসের র‌্যালি ও আলোচনা সভায় অংশগ্রহণের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।
তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিচারহীনতার কারণে শিশু নির্যাতন বেড়েছে এ কথাটা ঠিক নয়। মাঝে মধ্যে সমাজে এ ধরনের অবক্ষয়ের ঘটনা ঘটে। সেটা ঠিক করার দায়িত্ব সরকারের। বর্তমান সরকার শিশু নির্যাতন বন্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।
বিএনপি’র মধ্যবর্তী নির্বাচনের দাবীর প্রেক্ষিতে তথ্যমন্ত্রী বলেন, সংবিধানের নিয়ম অনুযায়ী স্থানীয় সরকার ও জাতীয় নির্বাচন হচ্ছে। হঠাৎ নির্বাচন করার কোন তাগিদ নেই, রাজনৈতিক প্রয়োজনও নেই।
তিনি বলেন, বেগম জিয়া আন্দোলন সংগ্রামে পরাজিত হয়ে এখন মানুষ পোড়ানোর দায় থেকে রেহাই পেতে নির্বাচনটাকে একটা কৌশল হিসেবে মাঠে ছুঁড়ে দিয়েছেন। আসলে নির্বাচন করা উনার উদ্দেশ্য নয়। অতীতেও নির্বাচন নিয়ে তার কাছে প্রস্তাব চাওয়া হয়েছে, কিন্তু প্রস্তাব দিতে পারেননি।
ইনু বলেন, এক সময় বিচার বিভাগকে বাদ দিয়ে তত্ত্বাবধায়ক সরকার গঠন বিষয়ে একটি প্রস্তাব ছিল, সেটি আর বাংলাদেশে আর সম্ভব না। বরং বিশেষ ট্রাইবুন্যালে মানুষ পোড়ানোর যে মামলা চালু করতে যাচ্ছে সরকার, সে মামলার যে কোন সময় রায় হবে। আর সে মামলাগুলো থেকে বাঁচতে ও সরকারের দৃষ্টি সরিয়ে নিতে বেগম জিয়া নির্বাচনের বুলি আউড়াচ্ছেন।
বেগম জিয়াকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, এই মুহূর্তে সরকারের অগ্রাধিকার হচ্ছে হত্যা-খুনসহ বিভিন্ন নাশকতা ও অন্তর্ঘাতের সঙ্গে জড়িতদের বিচার করা। বিচারের মাধ্যমে নিরাপদ সমাজ, রাজনীতি ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করাই হচ্ছে মূল লক্ষ্য। নিরাপদ গণতন্ত্রের কাঠামোতেই ভবিষ্যত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।
হালিমা একাডেমী মাধ্যমিক বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আব্দুল আলীমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক সৈয়দ বেলাল হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আবু বকর সিদ্দিক, ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার শান্তি মনি চাকমা, নারী জোটের নেত্রী আফরোজা হক রিনা, জেলা জাসদ সভাপতি গোলাম মহসিন, প্রমুখ।
এরপর একই মঞ্চে নিরাপদ স্কুল, নিরাপদ সমাজ নারী ও কিশোরী নির্যাতন প্রতিরোধে সৃজনশীলতা উপস্থাপন শীর্ষক আলোচনা সভায় মন্ত্রী হাসানুল হক ইনু প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন।
অনুষ্ঠানের শুরুতে বিদ্যালয়ের ছাত্রীরা সমাজে নারী-শিশু নির্যাতন বিষয়ক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। এর আগে ভেড়ামারা উপজেলা অডিটোরিয়াম চত্বর থেকে মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ উপলক্ষে বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষক-শিক্ষিকাদের অংশগ্রহণে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। শহর প্রদক্ষিণ শেষে হালিমা একাডেমী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এসে র‌্যালিটি শেষ হয়।
বিকেলে মন্ত্রী দৌলতপুর উপজেলার ফিলিপ নগরের কয়েকটি স্থানে পদ্মা নদীর ভাঙ্গণ কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন।