ব্রেকিং নিউজ

রাত ১০:২৩ ঢাকা, মঙ্গলবার  ১৯শে জুন ২০১৮ ইং

মেয়েরা যাতে প্রকাশ্যে শিশুকে বুকের দুধ খাওয়াতে পারে সেজন্য তোলা হয়েছে এমন ছবি, বলছেন ছবির ফটোগ্রাফার

শিশুকে মায়ের দুধ খাওয়ানো ছবি নিয়ে বিতর্ক

সেনাবাহিনীর দশজন নারী সদস্য তাদের বাচ্চাকে বুকের দুধ খাওয়াচ্ছেন এমন একটি ছবি প্রকাশ করলে, সামাজিক মাধ্যমে ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পরেছে।

এই ছবিটি যিনি তুলেছেন সেই ফটোগ্রাফার রুবিকে অনেকেই সমর্থণ জানাচ্ছেন।

অনেকে বলছেন এই ছবির মাধ্যমে জনসম্মুখে শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ানোটা যে খুব স্বাভাবিক একটা বিষয় সেটা মানুষের সামনে আনা হয়েছে।

ছবিটি ইতিমধ্যে ১০ হাজার বার শেয়ার করা হয়েছে এবং ফেসবুক ও ইস্টাগ্রামে বহু মানুষ সমর্থণ জানিয়েছে।

একজন ফেসবুক ব্যবহারকারি লিখেছেন “নারীরা তাদের পরিবার ও দেশের জন্য নিজেকে কতটা উজাড় করেন এই ছবি দেখলেই সেটা বোঝা যায়:।

এই ছবির ফটোগ্রাফার নিজেও মার্কিন বিমানবাহিনীতে কাজ করেছেন ১৯৯৭ সাল থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত।

মিজ রুবি বলেছেন তার অফিসে কোন আলাদা জায়গা ছিল না শিশুদের দুধ খাওয়ানোর জন্য। “তাই আমি

খালি ঘর খুঁজে বেড়াতাম আমার বাচ্চাকে খাওয়ানের জন্য” বলছিলেন তিনি।

এই ছবিটি গত বৃহস্পতিবার প্রথম বারের মত সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে দেওয়া হলে সেটা মুছে ফেলা হয়। পরে তিনি আবারো পোস্ট করেন। এবং পরে অনেকেই সমর্থণ জানিয়ে শেয়ার করে।

ছবিটি কেন ফেসবুক থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছিল এই প্রশ্ন করলে ফেসবুকের একজন মুখপাত্র জানান “ছবির বিষয়বস্তু আমার সমাজের মানকে লঙ্ঘন করতে পারে না। “

যদিও বেশির ভাগ মন্তব্য করা হয়েছে এই ছবিটিকে সমর্থণ ও প্রশংসা করে তবে কেউ কেউ সেনাবাহিনীর পোশাক পরে এই ছবি তোলা ঠিক হয়নি বলে মন্তব্য করেছেন।

একজন মন্তব্য করেছেন “ ইউনিফর্ম পরাটা যেকোন দেশের সরাসরি একটি প্রতিচ্ছবি, সেখানে এই ধরণের ছবি অপেশাদারিত্বের পরিচয় দিচ্ছে”।

তবে “অনলাইন সাপোর্ট গ্রুপ ব্রেস্টফিডিং ইন কমব্যাট বুটস””এর প্রতিষ্ঠাতা রবিন রোচি পল বলছেন মায়ের বুকের দুধ খাওয়ানো নিয়ে সমাজের মধ্যে যে কানাঘুষা আছে সেটা কমাবে এই ছবি।

তিনি বলেছেন “ এই ছবি প্রকাশের মাধ্যমে সেনাবাহিনীতে কাজ করা অন্য নারীরা বুঝতে পারবে আসলে সেনাবাহিনীতে কাজ করেও সন্তানকে মায়ের দুধ খাওয়ানো যায়”। বিবিসি।