ব্রেকিং নিউজ

রাত ৪:৪০ ঢাকা, বুধবার  ১৭ই অক্টোবর ২০১৮ ইং

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কখনোই অর্থ উপার্জনের প্রতিষ্ঠান হতে পারে না:রাষ্ট্রপতি

রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে শিক্ষার প্রকৃত পাদপীঠ হিসেবে গড়ে তুলতে সকলের প্রতি একযোগে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন।
তিনি আজ এখানে উত্তরা বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয় সমাবর্তন অনুষ্ঠানে ভাষণদানকালে বলেন, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে জ্ঞান অর্জনের প্রকৃত স্থান হিসাবে গড়ে তুলতে আমাদের সকলকে একযোগে কাজ করতে হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কখনোই অর্থ উপার্জনের প্রতিষ্ঠান হতে পারে না।
প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানি উপদেষ্টা ড. তৈফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী ও উত্তরা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. মো. আজিজুর রহমানও অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন। অনুষ্ঠানের সমাবর্তন বক্তা ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান ড. এ কে আজাদ চৌধুরী।
রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর প্রতি দরিদ্র পরিবার ও পিছিয়ে পড়া সম্প্রদায়ের মেধাবী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদানসহ নানা সুযোগ-সুবিধা দেয়ার আহ্বান জানান। দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য ফি ছাড়া পড়া-শোনার সুযোগ দেয়ার জন্য তিনি উত্তরা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানান।
রাষ্ট্রপতি অনুষ্ঠানে নয়া স্নাতকদের স্বাগত জানিয়ে তাদের জাতি গঠন কার্যক্রমে নিয়োজিত হওয়ার আহ্বান জানান।
তিনি বিভিন্ন সামাজিক সূচকে দেশের নানা অর্জনের বিষয় উল্লেখ করে বলেন, বৈশ্বিক অর্থনৈতিক মন্দা সত্বে¦ও বাংলাদেশ গত কয়েক বছর ধরে ৬ শতাংশের অধিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বজায় রাখতে সক্ষম হয়েছে। নারী ও শিশু স্বাস্থ্য, নারীর ক্ষমতায়ন, কৃষি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, আইসিটি, সমাজ কল্যাণ ও যোগাযোগ খাতে ব্যাপক সাফল্য অর্জিত হয়েছে।
রাষ্ট্রপতি বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর হিসেবে অনুষ্ঠানের সভাপতির ভাষণদানকালে বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত ‘সোনার বাংলা’ এখনো বাস্তবায়িত হয়নি।
তিনি বলেন, বর্তমান সরকার বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণে ‘রূপকল্প-২০২১’ বাস্তবায়ন করছে এবং আমি আশা করছি, এই তরুণ প্রজন্ম জ্ঞান-বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তিতে সমৃদ্ধ হয়ে মাতৃভূমির কল্যাণে কাজ করে যাবে।’
আবদুল হামিদ বলেন, তোমরা এই গ্রাজুয়েটরা হচ্ছো দেশের গুরুত্বপূর্ণ মানব সম্পদ। তোমরা তোমাদের পরিবার, সমাজ এবং সর্বোপরি দেশ-জাতির জন্য সর্বোচ্চ আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করবে।
রাষ্ট্রপতি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের প্রতি গবেষণা কর্মে আত্মনিয়োগ করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, গবেষণার মাধ্যমেই নতুন জ্ঞানের সৃষ্টি হবে, যা সমাজের বর্তমান চাহিদা পূরণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

Like & share করে অন্যকে দেখার সুযোগ দিন