ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৭:০৮ ঢাকা, সোমবার  ২২শে অক্টোবর ২০১৮ ইং

“শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মনোবিজ্ঞানী নিয়োগের পরামর্শ সায়মার”

আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন মানসিক স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ সায়মা ওয়াজেদ ব্যাপকভাবে উপেক্ষিত শিশুদের মানসিক বিষয়গুলোর সমাধানে এবং তাদের মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নয়নে বিদ্যালয়গুলোতে মনোবিজ্ঞানী নিয়োগের পরামর্শ দিয়েছেন।
আজ এক নিবন্ধে সায়মা ওয়াজেদ বলেছেন, স্কুল মনোবিজ্ঞানীরা হচ্ছেন পেশাজীবি যারা শিক্ষা কার্যক্রম, সামাজিক সম্পর্ক, আচার-আচরণ এবং আবেগময় ইস্যুতে সফল হওয়ার ব্যাপারে শিশু ও তরুণদের সহযোগিতা দিতে পারে।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক বিশেষজ্ঞ উপদেষ্টা প্যানেল সদস্য এবং অটিজম অ্যান্ড নিউরো ডেভলপমেন্টাল ডিসর্ডার্স বিষয়ক জাতীয় উপদেষ্টা কমিটির চেয়ারম্যান সায়মা বলেন, মানসিক স্বাস্থ্য ইস্যুটি সামনে নিয়ে আসার ক্ষেত্রে বাংলাদেশের সাফল্য অর্জন সত্ত্বেও এখনো পর্যন্ত স্কুলে মনোবিজ্ঞানী নিয়োগ দেয়ার বিধান করা হয়নি।
স্কুল মনোবিজ্ঞানী সায়মা বলেন, ‘আমাদের শিশু ও তরুনদের মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নয়নে বাংলাদেশের স্কুল ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মনোবিজ্ঞানী নিয়োগ হবে একটি অত্যন্ত ইতিবাচক পদক্ষেপ।’
তিনি বলেন, স্কুলে নিয়োগকৃত মনোবিজ্ঞানীরা তাদের পেশাগত সেবা প্রদানে শিক্ষার্থী, অভিভাবক, শিক্ষক, শিশুচিকিৎসক, নিউরোলোজিস্ট, স্কুল প্রশাসক, কমিউনিটি সার্ভিস প্রদানকারী, সমাজকর্মী ও থেরাপিস্টদের সঙ্গে কাজ করবেন।
দেশের শিশুদের মানসিক স্বাস্থ্য উন্নয়ন এবং দেশের অটিস্টিক শিশুদের সমস্যা সমাধানে বিশেষ গুরুত্ব প্রদানের জন্য সাম্প্রতিক বছরগুলোতে প্রচার কার্যক্রমে নেতৃত্ব প্রদানের ফলে তাঁর প্রবন্ধে এসব বিষয় উঠে এসেছে।
তিনি বলেন, একাডেমিক সাফল্য লাভে অগ্রগতি, ইতিবাচক আচরণ এবং মানসিক স্বাস্থ্যের বিকাশ, ভিন্নমুখী শিক্ষার্থীদের সহায়তা প্রদান, ইতিবাচক ও নিরাপদ স্কুল পরিবেশ গড়ে তোলা, পরিবার-স্কুল অংশীদারিত্ব জোরদার, স্কুল ভিত্তিক মূল্যায়ন জোরদার এবং জবাবদিহিতার জন্য স্কুলে মনোবিজ্ঞানী নিয়োগ করা জরুরি।
তিনি বলেন, শিক্ষালাভ, সামাজিক সম্পর্ক, জটিল সিদ্ধান্ত গ্রহন ও আবেগ নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষেত্রে শিশু ও তরুনদের অগণিত সমস্যার মুখোমুখী হতে হয়।
সায়মা বলেন, স্কুল শিশুরা অবসাদ, উদ্বেগ, দুঃখবোধ বা বিচ্ছিন্নতায় ভুগতে পারে, মনোবিজ্ঞানী তাদের এ ধরনের সমস্যা মেকাবেলায় স্বল্পমেয়াদের ও দীর্ঘমেয়াদে এবং পরিস্থিতি বুঝে সমস্যা সমাধানে ভূমিকা পালন করতে পারেন।
আমেরিকান ফিজিওলোজিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের (এপিএ) মতে স্কুল মনোবিজ্ঞানীরা বিদ্যালয়, পরিবার ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের মধ্যেই শিশু ও তরুণদের বিকাশের ওপর বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে ফিজিওলোজিক্যাল ডায়াগনোসিস, মূল্যায়ন, ইন্টারভেনশন, প্রতিরোধ, স্বাস্থ্য উন্নয়ন, প্রোগ্রাম উন্নয়ন ও মূল্যায়নে সেবা দিয়ে থাকেন।
তিনি বলেন, আমাদের এই অঞ্চলে এই পেশা মূলধারায় যুক্ত হয়নি। তবে, যুক্তরাষ্ট্র, স্পেন, কানাডা, জাপান ও তুরস্কসহ বিশ্বের ৪৮টির বেশি দেশে প্রায় ১ লাখ স্কুল মনোবিজ্ঞানী কাজ করছেন। বাসস