ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৮:৩৫ ঢাকা, সোমবার  ২৪শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

ওবায়দুল কাদের
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্র সংসদ নির্বাচন দিন : কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্র সংসদ নির্বাচন দেওয়ার জন্য শিক্ষামন্ত্রী ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধানদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

আজ বুধবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার সামনে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৬৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই আহ্বান জানান।

ওবায়দুল কাদের বলেন, শিক্ষামন্ত্রীকে বলব, ক্যম্পাসে যদি গণতন্ত্রচর্চার একটা সুন্দর চমৎকার পরিবেশ গড়ে তুলতে চান, তাহলে ঢাকসুসহ সকল ছাত্র সংসদের নির্বাচন দেওয়ার ব্যবস্থা করুন।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগের সভাপতিত্বে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, ডা. দীপু মনি ও এডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আহম্মদ হোসেন, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী ও এনামুল হক শামীম, বন ও পরিবেশ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, সাংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিলসহ ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচন যখন থাকবে, তখন যারা প্রার্থী হবে, তখন তারা ভাববে আমি যদি খারাপ আচরণ করি তাহলে শিক্ষার্থীরা আমাকে ভোট দিবে না। কাজেই ছাত্র সংসদ নির্বাচন দরকার। আজকে ২৫ বছর ধরে অনির্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ হয়ে আছে সকল ছাত্র সংসদ। খোলা থাকলে অন্তত ৫০জন নেতা তৈরি হতো। তাই ছাত্র সংসদ নির্বাচন অত্যন্ত জরুরী।

ছাত্রলীগকে পরগাছামুক্ত করার নির্দেশ দিয়ে ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি কাদের বলেন, ছাত্রলীগ নেতাদের একটা কথা বলতে চাই। সংগঠনে অনুপ্রবেশকারী, পরগাছা মুক্ত ছাত্রলীগ চাই।২০১৭ সালের অঙ্গিকার হবে, অনুপ্রবেশকারী, পরগাছামুক্ত ছাত্রলীগ।

তিনি বলেন, অনুপ্রবেশকারী, পরগাছারাই ছাত্রলীগের এগিয়ে যাবার পথে প্রধান বাধা। এদেরকে চিহ্নিত করতে হবে। ছাত্রলীগের বিভিন্ন কমিটিতে বিভিন্ন কায়দায় এই অনুপ্রবেশকারীরা নানা সমস্যা সৃষ্টি করে। এই সমস্যা সৃষ্টির পিছনে জড়িত গুটি কয়েক পরগাছা, বদনাম হয় গোটা পার্টির। বদনাম হয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের। বদনাম হয় ছাত্রলীগের।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ছাত্রলীগে ত্যাগী কর্মীদের মূল্যায়ন করতে হবে। ত্যাগী কর্মীরা যেন কোন ভাবেই কোণঠাসা না হয়। ছাত্রলীগে যেন পকেট কমিটি কোথাও না হয়।

বিএনপির সমালোচনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, আজকে বিএনপির বুদ্ধিজীবীরা বলেন, বিএনপি হাঁটু ভাঙ্গা দল। আমি বলব, ফেলে আসা বছরের সবচেয়ে ব্যর্থ দল হচ্ছে বিএনপি। নারায়ণগঞ্জ নির্বাচনে হারার পর বিএনপি দিশেহারা দলে পরিণত হয়ে গেছে। এখন তারা আবোল তাবোল বকছে, উন্মাদের মতো হয়ে গেছে।