ব্রেকিং নিউজ

রাত ১১:২০ ঢাকা, সোমবার  ২৪শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

শহীদ ডা. মিলনের আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে চিকিৎসকদের সেবা দেয়ার আহ্বান স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম চিকিৎসকদের শহীদ ডা. শামসুল আলম খান মিলনের আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে রোগীদের চিকিৎসাসেবা দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।
তিনি বলেন, শহীদ মিলন ছিলেন সৎ, ত্যাগী, দেশপ্রেমিক ও রোগীদের প্রতি অত্যন্ত দরদী মনের মানুষ। তিনি স্বপ্ন দেখতেন গ্রাম-গঞ্জে বসবাসকারী দরিদ্র মানুষও যেন চিকিৎসাসেবা থেকে বঞ্চিত না হয়। তার সে স্বপ্ন পূরণে চিকিৎসকরা দরদী মন নিয়ে রোগীদেরকে চিকিৎসাসেবা দিবেন এটাই মানুষের প্রত্যাশা।
স্বাস্থ্যমন্ত্রী আজ শনিবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের বি ব্লকের নীচতলায় শহীদ ডা. মিলন হলে শহীদ ডা. শামসুল আলম খান মিলনের ২৫তম শাহাদৎবার্ষিকী উপলক্ষে অনুষ্ঠিত স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খানের সভাপতিত্বে স্মরণ সভায় বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, শহীদ ডা. মিলনের মা সেলিনা আক্তার, সাবেক সংসদ সদস্য ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, বাংলাদেশ মেডিকেল এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি অধ্যাপক ডা. মাহমুদ হাসান, আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. বদিউজ্জামান ভূঁইয়া ডাবলু, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক ডা. এম ইকবাল আর্সলান, মহাসচিব অধ্যাপক ডা. এম এ আজিজ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
মোহাম্মদ নাসিম বলেন, হাজারো প্রতিকূলতা, প্রতিবন্ধকতা অতিক্রম করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ যখন মাথা উঁচু করে এগিয়ে যাচ্ছে তখন দেশকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা চলছে। মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তিকে নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে সকল অশুভ শক্তির অপতৎপরতা রুখে দিতে হবে।
তিনি বিএনপির আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে অংশ নেয়ার ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, আওয়ামী নির্বাচনের মাঠে সব সময় প্রস্তুত রয়েছে।
রাশেদ খান মেনন বলেন, শহীদ ডা. মিলনের আত্মত্যাগ তৎকালীন স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনকে চূড়ান্ত পরিণতির দিকে নিয়ে গিয়েছিল।
শহীদ ডা. মিলন জননী সেলিনা আক্তার বলেন, শহীদ ডা. মিলনের ছিল দেশের প্রতি অকৃত্রিম ভালোবাসা। মিলন ছিল সৎ ও নিষ্ঠাবান। মিলন স্বপ্ন দেখতো সমতা ভিত্তিক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার। চিকিৎসক হিসেবে মিলন সব সময় চাইতো দেশের গরীব রোগীদের চিকিসাসেবা নিশ্চিত করতে। আজ মিলন নেই, তবু চিকিৎসকদের মাঝেই আমি আমার মিলনকে খুঁজে পাই।