Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৬:৪৮ ঢাকা, সোমবার  ১৯শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

লতিফ সিদ্দিকীকে মুক্তি দিলে সর্বাত্মক আন্দোলন

আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীকে মুক্তি দেয়া হলে সারাদেশে সর্বাত্মক আন্দোলন গড়ে তোলার হুমকি দিয়েছে হেফাজতে ইসলামের নেতৃবৃন্দ। বুধবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংগঠনটির একটি বিবৃতিতে এ হুমকির কথা জানানো হয়।
হেফাজতে ইসলামের সিনিয়র নায়েবে আমির আল্লামা শাহ মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী, নায়েবে আমির আল্লামা শামসুল আলম, আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী, আল্লামা আবদুল মালেক হালিম, আল্লামা মুফতি মুজাফফর আহমদ, মাওলানা তাফাজ্জল হক হবিগঞ্জী, মুফতি আহমদুল্লাহ ও মহাসচিব আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী এ বিবৃতি দেন।
বিবৃতিতে হেফাজত নেতৃবৃন্দ বলেন, আত্মস্বীকৃত ধর্মদ্রোহী মুরতাদ লতিফ সিদ্দিকী হজ, মহানবী ও তাবলীগ জামাআত সম্পর্কে জঘন্যতম কটূক্তি করে বিশ্বের একশ’ ত্রিশ কোটি মুসলমানের ধর্মীয় অনুভুতি আঘাত করেছিলেন। তারা বলেন, এদেশে প্রত্যেক ধর্মাবলম্বী স্বাধীনভাবে নিজ নিজ ধর্মকর্ম পালন করে আসছে। কিন্তু সম্প্রতি কতিপয় ইসলাম বিদ্বেষী নাস্তিক ও তথাকথিত মুক্তমনা মত প্রকাশের অধিকার ও মুক্তচিস্তার অপব্যবহারে মাধ্যমে মহান আল্লাহ, ইসলাম, বিশ্বনবী, মহানবীর সহধর্মিনী, ইসলামের পবিত্র ইবাদত ও নিদর্শনাবলী সম্পর্কে চরম আপত্তিকর কটূক্তি করে সমাজে বিরাজমান শাস্তি-শৃঙ্খলা বিনষ্ট করে ঘোলা পানিতে মাছ শিকারে করে যাচ্ছে।
হেফাজত নেতৃবৃন্দ বলেন, আমরা সরকারকে স্পষ্টভাবে বলতে চাই, জাতীয় সংসদের আসন্ন অধিবেশনে ধর্ম অবমাননাকারী নাস্তিক-মুরতাদের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ডের বিধান পাস করুন। লতিফ সিদ্দিকীসহ কোনও নাস্তিক মুরতাদকে যদি কারাগার থেকে মুক্তি দেয়া হয়; ৯২ শতাংশ মুসলমানের জাতীয় সংসদে যদি আবারও লতিফ সিদ্দিকে দেখা যায় তাহলে সারাদেশের তাওহীদি জনতা আবারও নাস্তিক-মুরতাদ বিরোধী আন্দোলন গড়ে তুলবে। একই সঙ্গে লতিফ সিদ্দিকীকে প্রকাশ্য রাজপথে প্রতিহত করা হবে।
এদিকে আবদুল লতিফ সিদ্দিকীকে হাইকোর্ট থেকে জামিন দেয়ার প্রতিবাদে বুধবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে জেলা হেফাজতে ইসলামের নেতারা এই ঘোষণা দেন। বুধবার জোহরের নামাজের পর শহরের টি.এ রোড থেকেহেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে স্থানীয় প্রেসক্লাব চত্বরে এসে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
সমাবেশে বক্তারা বলেন, সরকার আগামী ৬ জুন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সফরকে কেন্দ্র করে তাকে খুশি করার জন্য লতিফ সিদ্দিকীকে জামিন দিয়েছে। কিন্তু লতিফ সিদ্দিকীকে কারাগার থেকে যেদিন মুক্তি দেওয়া হবে সেদিন থেকেই সারা বাংলাদেশে লাগাতার হরতাল কর্মসূচি পালন করা হবে। এসময় তারা দ্রুত লতিফ সিদ্দিকীর বিচারের দাবি জানান। অবিলম্বে শাস্তির আওতায় আনতে ব্যর্থ হলে হেফাজতে ইসলাম লাগাতার কর্মসূচি ঘোষণা করতে বাধ্য হবে।