ব্রেকিং নিউজ

সন্ধ্যা ৬:১১ ঢাকা, সোমবার  ২৪শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

লতিফ সিদ্দিকীকে বাদ না দিলে দেশ অচল: হেফাজত, পদত্যাগ দাবি: বিএনপির, গ্রেপ্তার করুন: এরশাদ, প্রধানমন্ত্রী ফিরলে সিদ্ধান্ত: ওবায়দুল কাদের

শীর্ষ মিডিয়া  ৩০ সেপ্টেম্বর ঃ গত রোববার নিউ ইয়র্কে স্থানীয় টাঙ্গাইল সমিতির এক অনুষ্ঠানে লতিফ সিদ্দিকী বলেন, “আমি কিন্তু হজ আর তাবলিগ জামাতের ঘোরতর বিরোধী। আমি জামায়াতে ইসলামীরও বিরোধী।”এই হজের জন্য ২০ লাখ লোক আজ সৌদি আরবে গেছেন। এদের কোনো কাজ নাই। কোনো প্রডাকশন নাই, শুধু ডিডাকশন দিচ্ছে। শুধু খাচ্ছে আর দেশের টাকা বিদেশে দিয়ে আসছে।”

এক সাংবাদিক ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনে প্রধানমন্ত্রীর ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়ের ভূমিকা নিয়ে মন্ত্রীর মন্তব্য চাইলে লতিফ সিদ্দিকী বলেন, “কথায় কথায় আপনারা জয়কে টানেন কেন। ‘জয় ভাই’ কে? “জয় বাংলাদেশ সরকারের কেউ নয়। তিনি কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়ারও কেউ নন।”

সোমবার সংবাদপত্রে মন্ত্রীর বক্তব্য প্রকাশের পর বিএনপি, জাতীয় পার্টি সহ বিভিন্ন ইসলামী দলের পক্ষ থেকে তার পদত্যাগ ও বিচার দাবী করা হয়েছে। সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরলে এই বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

                                                                                  বিএনপি

এক বিবৃতিতে মিঃ ফখরুল অভিযোগ করেন, লতিফ সিদ্দিকী কথাবার্তায় সব সময় সভ্যতার সীমা অতিক্রম করেন। ফখরুল আরও বলেন, ইসলামের অবশ্যপালনীয় অন্যতম স্তম্ভ হজ। বাংলাদেশসহ বিশ্বের লাখ লাখ মুসলমান আল্লাহর নৈকট্যলাভের জন্য প্রতিবছর হজের সময় পবিত্র মক্কা শরিফে হজ করেন। কেবল বিশ্বের কোটি কোটি মুসলমান নয় এমনকি অন্য ধর্মের চিন্তাশীল মানুষেরাও শেষ নবী হজরত মুহাম্মদ (স.)-কে শ্রেষ্ঠ মানব হিসেবে অভিহিত করেছেন। অথচ মুসলমান নামধারী বর্তমান অবৈধ সরকারের ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকী নবীজী সম্পর্কে যে অপমানজনক কথা বলেছেন, তা কেবল চরম সীমালঙ্ঘনকারীরাই করতে পারে। মন্ত্রিপরিষদ থেকে তাকে পদত্যাগের দাবী জানানো হয়।

                                                                                  হেফাজত

লতিফ সিদ্দিকীর বক্তব্য প্রকাশের পর ৭২ ঘণ্টার মধ্যে তাকে তাকে বরখাস্ত করতে সরকারকে আহ্বান জানিয়েছিল হেফাজত।  তা মনে করিয়ে দিয়ে মঙ্গলবার এই সংগঠনের এক বিবৃতিতে বলা হয়, “আমাদের দেওয়া ৭২ ঘণ্টার আল্টিমেটামের ২৪ ঘণ্টা পার হয়ে গেছে। আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে যদি তাকে অপসারণ করে বিচারের মুখোমুখি করা না হয় তবে লাগাতার কঠোর কর্মসূচি দিয়ে সবকিছু অচল করে দেওয়া হবে।” লতিফ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে এক সমাবেশে হেফাজতের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মুফতী ফয়জুল্লাহ ব্লাসফেমি আইন করে এই মন্ত্রীকে সেই আইনে প্রকাশ্যে ফাঁসি দেওয়ার দাবিও তোলেন।

                                                                                জাতীয় পার্টি

হজ এবং তাবলিগ জামায়াতকে নিয়ে ‘জঘন্য’ বক্তব্যের জন্য মন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ।

সোমবার এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, “ইসলামের চার স্তম্ভের অন্যতম স্তম্ভ হজ। তা নিয়ে লতিফ সিদ্দিকী যে কুৎসিত ও জঘন্য বক্তব্য দিয়েছেন, তার নিন্দা প্রকাশেরও ভাষা আমার জানা নেই। “অবিলম্বে তাকে মন্ত্রিপরিষদ থেকে বহিষ্কার করে গ্রেপ্তার করতে হবে।” হজ সম্পর্কে লতিফ সিদ্দিকীর মন্তব্য মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করেছে দাবি করে এরশাদ বলেন, এর জন্য শুধু ক্ষমা চাইলেই হবে না,দেশের প্রচলিত আইনে তার বিচার ও শাস্তির বিধান করতে হবে। দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একজন ধর্মপ্রাণ মুসলিম নারী। তিনি বহুবার হজ পালন করেছেন। সেখানে লতিফ সিদ্দিকী এই উক্তির মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর ধর্মীয় বিশ্বাসেও চরম আঘাত হেনেছেন। এদিকে চট্টগ্রামের কর্মিসভায় জাতীয় পার্টির মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু বলেন, লতিফ সিদ্দিকীর বক্তব্যের প্রতিবাদে বুধবার রাজধানীসহ সারা দেশে বিক্ষোভ সমাবেশ করবে তার দল।

                                                                                 মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

মঙ্গলবার দুপুরে সাভারে এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, “সরকারের বড় দায়িত্বে থেকে সরকারেরই ভাবমূর্তির জন্য ক্ষতিকর বক্তব্য দেওয়া বা আচরণ করা কারো জন্য সমীচীন নয়,  দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মিঃ কাদের আরও বলেন, “বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর গোচরে আছে, তিনি দেশে ফিরলে এ ব্যাপারে দলীয়ভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়কে ‘ভবিষৎ নেতা’ হিসেবে অভিহিত করে কাদের বলেন, জয়কে নিয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী যে মন্তব্য করেছেন তাও ঠিক নয়।