আনিসুল হক।
আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক।

রেজিস্ট্রি অফিসের দুর্নীতি রেজিস্ট্রারদেরকেই ভাঙ্গার নির্দেশ

সাব-রেজিস্ট্রি ও জেলা রেজিস্ট্রি অফিসগুলোতে দুর্নীতির দুষ্ট চক্র ভেঙ্গে ফেলার জন্য  সাব-রেজিস্ট্রার ও রেজিস্ট্রারদেরকে নির্দেশ দিয়েছেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক।

তিনি বলেন, এ ব্যাপারে আইন মন্ত্রণালয় সব ধরনের সহযোগিতা করতে প্রস্তুত আছে।

আজ ঢাকায় বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

নিবন্ধন অধিদপ্তরে স্বচ্ছতা ও জনবান্ধব পরিসেবা নিশ্চিত করণের লক্ষ্যে আয়োজিত মতবিনিময়সভায় সভাপতিত্ব করেন নিবন্ধন অধিদপ্তরের মহাপরিদর্শক খান মো. আব্দুল মান্নান।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে লজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগের সিনিয়র সচিব মোহাম্মদ শহিদুল হক, আইন ও বিচার বিভাগের সচিব আবু সালেহ শেখ মো. জহিরুল হক, যুগ্ম সচিব বিকাশ কুমার সাহা বক্তৃতা করেন।

আনিসুল হক বলেন, ‘‘আপনারা নিজেরা মাঠ পর্যায়ে চাকরি করেন। আমি সেখানে চাকরি করিনা। তাই দুর্নীতির সিন্ডিকেট ভাঙ্গতে অবশ্যই আপনাদেরকে পদক্ষেপ নিতে হবে। এতে প্রতিবন্ধকতা এলে আমি সহযোগিতা করবো।’’

মন্ত্রী সততার সাথে কাজ করার মানসিকতা তৈরি করার আহবান জানিয়ে বলেন, জনগণকে যথার্থ সেবা দিতে হবে। দুর্নীতির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।

তিনি বলেন, আপনাদের সম্মান যত বৃদ্ধি করা হবে মানুষের চাহিদা কিন্তু ততই বাড়বে। এই চাহিদা পূরণ করা এবং এই সম্মান বজায় রাখতে গেলে আপনাদের সকলকে দুর্নীতিমুক্ত হতেই হবে।

তিনি সাব-রেজিস্ট্রারদের সৎ থাকার আহ্বান জানিয়ে বলেন, আপনারা সৎ ও দুর্নীতিমুক্ত থাকলে কেউ আপনাদের হয়রানি করতে পারবে না।

মন্ত্রী বলেন, নিবন্ধন পরিদপ্তরকে অধিদপ্তরে উন্নীত করা হয়েছে। জেলা রেজিস্ট্রারদের গাড়ি প্রদানের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে, নতুন সাব-রেজিস্ট্রি অফিস ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। অফিসগুলোর ক্যাটাগরি পুনর্বিন্যাস করা হয়েছে। বদলির ক্ষেত্রে শৃঙ্খলা ফিরে আনা হয়েছে। কর্মচারিদের বেতন-ভাতা প্রায় একশভাগ বৃদ্ধি করা হয়েছে। নকল নবীশদের পারিশ্রমিক বৃদ্ধি করা হয়েছে। প্রয়োজনে আরো বৃদ্ধি করা হবে। তারা যাতে প্রতিমাসে পারিশ্রমিক পান সে ব্যবস্থাও করা হয়েছে। শুন্য পদে ১৫০জন সাব-রেজিস্ট্রার নিয়োগ দেয়া হয়েছে।