ব্রেকিং নিউজ

রাত ১১:৪১ ঢাকা, সোমবার  ১২ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

ড. হাছান মাহমুদ
আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, ফাইল ফটো

রিজভীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি ড. হাছানের

একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার বিচারের রায় নিয়ে ঔদ্ধত্যপূর্ণ ও মানহানিকর মন্তব্য করায় বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভীর বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ এমপি।

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ আজ দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন।

রিজভীর এ ধরনের বক্তব্য হামলায় হতাহতদের বিরুদ্ধে তামাশা হিসেবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমরা আশা করি, নারকীয় ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় নিয়ে তিনি যে ধরনের মন্তব্য করেছেন তা চুড়ান্তভাবে আদালত অবমাননা। আদালত এ বিষয়ে কঠোর ব্যবস্থা নেবে।’

তিনি বলেন, মামলার রায়ে যখন প্রমাণ হয়েছে বিএনপি সরাসরি একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলার সঙ্গে জড়িত তখন রিজভীর এ ধরনের চরম মিথ্যাচার হামলার ভূক্তভোগীদের সঙ্গে মস্করা ছাড়া আর কিছুই নয়।

ড. হাছান বলেন, একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ে প্রমাণ হয়েছে বিএনপি সরাসরি এ হামলার সঙ্গে জড়িত ছিল।

এ মামলার রায়ের পর বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ‘ আওয়ামী লীগ নিজেরাই তাদের সমাবেশে গ্রেনেড হামলা চালিয়েছিল এবং দলটির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান নিরপরাধ’ বলে দাবি করেছিল।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, প্রকাশ্যে এ হামলা চালানো হয়েছিল। কিন্তু হামলার সময় উপস্থিত আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা ও গোয়েন্দা সংস্থার লোকেরা হামলাকারীদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা না নিয়ে পালিয়ে যেতে সহায়তা করেছে।

এ হামলায় নিজে মারাত্মকভাবে আহত হয়েছিলেন উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, হামলার পর আহতদের চিকিৎসা দিতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ রাজধানীর অন্যান্য হাসপাতালগুলো অস্বীকৃতি জানিয়েছিল।

সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সবুর, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক হারুন অর রশিদ, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক শামসুন নাহার চাপা, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন নাহার লাইলী ও উপ-দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়–য়া প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

FOLLOW US: